বিশ্ব স্ট্রোক দিবস ২০২০: আপনি কি জানেন যে প্রতি ৪০ সেকেন্ডে একজন ব্যক্তির স্ট্রোক হয়? আমেরিকায় যত মৃত্যুর ঘটনা ঘটে স্ট্রোক তার মধ্যে পঞ্চম বৃহত্তম কারণ। স্ট্রোক যে কোনও ব্যক্তির হতে পারে। চিকিৎসকদের মতে, এটি মস্তিষ্কের কোষগুলির মধ্যে রক্ত সঞ্চালনের অভাবে ঘটে।

প্রতি বছর ২৯ অক্টোবর সাধারণ মানুষকে স্ট্রোক সম্পর্কে সচেতন করতে ‘বিশ্ব স্ট্রোক দিবস’ পালিত হয়। সিডিসির মতে, মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রে ৪৯ শতাংশ লোক উচ্চ রক্তচাপ, উচ্চ কোলেস্টেরল এবং ধূমপানের কারণে স্ট্রোকের সমস্যায় পড়েছেন। বিশেষজ্ঞরা বলছেন, কোনও ব্যক্তি যদি সঠিকভাবে রক্তচলাচল নিয়ন্ত্রণ করে তবে এই ভয়ঙ্কর রোগটি এড়ানো সম্ভব। এর জন্য প্রতিদিনের ডায়েটে কিছু জিনিস অন্তর্ভুক্ত করতে হবে।

হাই ফ্যাটযুক্ত দুগ্ধজাত খাবার আমাদের হার্টের স্বাস্থ্যের জন্য ভালো নয়। তবে ফ্যাট ছাড়া সাধারণ দই খেতে পারেন। এতে থাকা প্রচুর পরিমাণে ফাইবার হার্টের জন্যও ভালো।

আমেরিকান হার্ট অ্যাসোসিয়েশন জানাচ্ছে, যে সব মহিলারা বেশি পটাসিয়াম যুক্ত খাবার খান তাদের স্ট্রোকের ঝুঁকি অন্যের চেয়ে কম থাকে। কলা পটাসিয়াম যুক্ত একটি অন্যতম ভালো খাবার। তাত্ক্ষণিক শক্তির জন্যও কলাও খুব উপকারী।

স্ট্রোকের সমস্যা থেকে মুক্তি পেতে মিষ্টি আলুও বেশ কার্যকর। এতে উপস্থিত ফাইবার এবং পটাশিয়াম স্বাস্থ্যের জন্য খুব উপকারী। সবচেয়ে ভালো ব্যাপার হল এটি যে কোনও খাবারের মধ্যে সহজেই দেওয়া যায়।

ফাইবার সমৃদ্ধ ওটমিল শরীরের এলডিএল কোলেস্টেরল হ্রাস করতে সহায়তা করে। এটি শরীরের জন্য খুব উপকারী।

লাল-নীল-গেরুয়া...! 'রঙ' ছাড়া সংবাদ খুঁজে পাওয়া কঠিন। কোন খবরটা 'খাচ্ছে'? সেটাই কি শেষ কথা? নাকি আসল সত্যিটার নাম 'সংবাদ'! 'ব্রেকিং' আর প্রাইম টাইমের পিছনে দৌড়তে গিয়ে দেওয়ালে পিঠ ঠেকেছে সত্যিকারের সাংবাদিকতার। অর্থ আর চোখ রাঙানিতে হাত বাঁধা সাংবাদিকদের। কিন্তু, গণতন্ত্রের চতুর্থ স্তম্ভে 'রঙ' লাগানোয় বিশ্বাসী নই আমরা। আর মৃত্যুশয্যা থেকে ফিরিয়ে আনতে পারেন আপনারাই। সোশ্যালের ওয়াল জুড়ে বিনামূল্যে পাওয়া খবরে 'ফেক' তকমা জুড়ে যাচ্ছে না তো? আসলে পৃথিবীতে কোনও কিছুই 'ফ্রি' নয়। তাই, আপনার দেওয়া একটি টাকাও অক্সিজেন জোগাতে পারে। স্বতন্ত্র সাংবাদিকতার স্বার্থে আপনার স্বল্প অনুদানও মূল্যবান। পাশে থাকুন।.

করোনাকালে বিনোদন দুনিয়ায় কী পরিবর্তন? জানাচ্ছেন, চলচ্চিত্র সমালোচক রত্নোত্তমা সেনগুপ্ত I