কলকাতা: এবার চিকিৎসকের হাতে নিগৃহীত হলেন স্বাস্থ্য ভবনের আধিকারিক। স্বাস্থ্য ভবনে নিজের কার্যালয়ে থাকাকালীনই এক সার্জারির চিকিৎসক তাঁর উপরে চড়াও হন। জানা গিয়েছে স্বাস্থ্য ভবনে নো অবজেকশন সার্টিফিকেট আনতে গিয়েছিলেন অভিযুক্ত চিকিৎসক। তখনই এই ঘটনা ঘটে।

অভিযুক্ত চিকিৎসক ন্যাশনাল মেডিক্যাল কলেজ থেকে স্নাতকোত্তর পাশ করে সম্প্রতি কোচির এক প্রতিষ্ঠানে ইউরোলজি নিয়ে পড়ার সুযোগ পেয়েছেন। মাঝে তিনি লেডি ডাফরিন ও ক্যালকাটা মেডিক্যাল কলেজে বন্ড চিকিৎসক হিসেবেও কাজ করেছেন। বৃহস্পতিবার স্বাস্থ্য ভবনে তিনি নো অবজেকশন সার্টিফিকেট আনতে যান। তখনই স্বাস্থ্য আধিকারিক নীলাঞ্জন গঙ্গোপাধ্যায়ের সঙ্গে বচসা শুরু হয়। কিছুক্ষণের মধ্যেই নীলাঞ্জন বন্দ্যোপাধ্যায়ের উপরে চড়াও হন সেই চিকিৎসক। স্বাস্থ্য আধিকারিকের চিৎকার শুনে নিরাপত্তা রক্ষীরা ঘরে গিয়ে পরিস্থিতি সামাল দেন।

ওই চিকিৎসকের দাবি, এনওসি দিতে দেরি করায় এই কাণ্ড ঘটিয়েছেন। এমনকী, এনওসি না পেলে স্বাস্থ্য ভবনের বাইরে গায়ে আগুন দেবেন বলেও হুমকি দিয়েছেন তিনি। এর পরে অভিযুক্ত চিকিৎসকের বিরুদ্ধে থানা অভিযোগ দায়ের করা হয়।

কিছুদিন আগে এনআরএস-এ এক জুনিয়র ডাক্তারের হাতে নিগৃহীত হন কর্তব্যরত ফার্মাসিস্ট। আর তার পরেই বৃহস্পতিবারের এই ঘটনা, চিকিৎসকদের ভূমিকা ও ভাবমূর্তির দিকে প্রশ্ন তুলছে। তাই বৃহস্পতিবারই ফার্মাসিস্টরা মুখে কালো ব্যাজ পরে মৌন মিছিল করেন। চিকিৎসকদের এহেন আচরণ যাতে শীঘ্রই বন্ধ হয়, তার জন্য নিয়মিত আলোচনা করছেন স্বাস্থ্য আধিকারিকরা।