নয়াদিল্লি: প্রত্যেকদিন দেশের করোনা পরিস্থিতির আপডেট দেন স্বাস্থ্য দফতরের যে আধিকারিক, এবার তিনিই আক্রান্ত করোনায়। শুক্রবার লাভ আগরওয়াল নামে কেন্দ্রীয় স্বাস্থ্য মন্ত্রকের ওই আধিকারিকের করোনা টেস্টের রিপোর্ট পজিটিভ এসেছে।

সোশ্যাল মিডিয়ায় এই খবর জানিয়েছেন ওই আধিকারিক। আপাতত হোম আইসোলেশনে রয়েছেন তিনি। সব সহকর্মীকে সতর্ক হতে বলেছেন তিনি। হেল্থ টিম দ্রুত কনট্যাক্ট ট্রেসিং করে ওই আধিকারিকের সংস্পর্শে আসা লোকজনকে চিহ্নিত করবে বলে জানিয়েছেন তিনি।

৪৮ বছরের ওই অফিসার দিল্লি আইআইটি-র প্রাক্তনী। অন্ধ্রপ্রদেশ ক্যাডারের অফিসার তিনি। ২০১৬ থেকে কেন্দ্রীয় স্বাস্থ্যমন্ত্রকের যুগ্ম সচিব পদে রয়েছেন তিনি। উত্তরপ্রদেশের বাসিন্দা এই অফিসারকে কেন্দ্র অতিমারীর মধ্যে স্বাস্থ্য মন্ত্রকের মুখ হিসেবে বেছে নিয়েছিল।

বরাবরই স্বল্পভাষী এই অফিসার কর্তব্যে অবিচল। সূত্রে জানা যায়, কখনও কাজের বাইরে অতিরিক্ত কথা বলতে শোনা যায় না তাঁকে।

প্রত্যেকদিন সাংবাদিক বৈঠক করে দেশের করোনা পরিস্থিতির আপডেট দেন তিনি। এর পাশাপাশি রাজ্যের পরিস্থিতি মনিটর করার দায়িত্বও দেওয়া হয় তাঁকে। কেন্দ্রীয় টিমের সঙ্গে একাধিক রাজ্যে গিয়ে করোনা পরিস্থিতি কীভাবে সামলানো যায়, তা সেখানকার সরকারকে বুঝিয়ে এসেছেন তিনি।

শুক্রবারের হিসেব বলছে, দেশে শেষ ২৪ ঘন্টায় আরও বেড়েছে করোনা সংক্রমণ। ২৪ ঘন্টায় করোনা আক্রান্ত হয়েছেন ৬৪ হাজার ৫৫৩ জন। এই সময়ের মধ্যে নতুন করে মৃত্যু হয়েছে ১০০৭ জনের।

নতুন সংক্রমণ ও মৃত্যুর জেরে দেশে মোট সংক্রমণ দাঁড়িয়েছে ২৪ লক্ষ ৬১ হাজার ১৯১-এ। এর মধ্যে অ্যাক্টিভ কেস রয়েছে ৬ লক্ষ ৬১ হাজার ৫৯৫ টি। সুস্থ হয়ে উঠেছেন ১৭ লক্ষ ৫১ হাজারেরও বেশি মানুষ। এখন পর্যন্ত মোট মৃত্যু হয়েছে ৪৮ হাজার ৪০ জনের।

করোনা পরিস্থিতি মোকাবিলায় কেন্দ্রীয় স্বাস্থ্য ও পরিবার কল্যাণমন্ত্রক জানিয়েছে, ৩ কোটির বেশি এন৯৫ মাস্ক এবং ১.২৮-এর বেশি পিপিই কিট এবং ১০.৮৩ কোটি হাইড্রক্সিক্লোরোকুইন ট্যাবলেট এখনও অবধি রাজ্যগুলিকে বিনামূল্যে দেওয়া হয়েছে কেন্দ্রের তরফে। মার্চ মাসের ১১ তারিখ থেকে এখনও অবধি এই পরিমাণ জিনিস পৌঁছে গিয়েছে রাজ্য প্রশাসনের হাতে।

একটি বিবৃতিতে জানানো হয়েছে, মেক ইন ইন্ডিয়ার আওতায় মোট ২২,৫৩৩ ভেন্টিলেটরও পাঠানো হয়েছে রাজ্য সহ কেন্দ্রশাসিত অঞ্চল এবং কেন্দ্রীয় প্রতিষ্ঠানগুলিকে।

পপ্রশ্ন অনেক: নবম পর্ব

Tree-bute: আমফানের তাণ্ডবের পর কলকাতা শহরে শতাধিক গাছ বাঁচাল যারা