স্টাফ রিপোর্টার, জলপাইগুড়ি: স্বাস্থ্যকেন্দ্র আছে। কিন্তু সেখানে নেই কোনও চিকিৎসক। তাই মিলছে না স্বাস্থ্য পরিষেবা।

এই রকম বেহাল অবস্থা জলপাইগুড়ি সরকারি ইঞ্জিনিয়ারিং কলেজের স্বাস্থ্যকেন্দ্রে৷ চিকিৎসা পরিষেবা পাচ্ছেন না কলেজের ছাত্রছাত্রী থেকে শুরু করে অধ্যাপক ও শিক্ষাকর্মীরা।

আরও পড়ুন: বহুতল থেকে পড়ছে জলপ্রপাত, স্থাপত্যের নজির গড়ল চিন

স্বাস্থ্যকেন্দ্র সূত্রে জানা গিয়েছে, এই স্বাস্থ্যকেন্দ্রে রয়েছে দশটি বেড৷ একসময় কলেজের ছাত্রছাত্রী, অধ্যাপক ও শিক্ষাকর্মীদের স্বাস্থ্য পরিষেবা মিলত এখানেই। ২০১৫ সাল থেকে এই স্বাস্থ্যকেন্দ্রে নেই কোনও চিকিৎসক৷ একজন মাত্র ফার্মাসিস্টকে দিয়ে কোনওভাবে চলছে স্বাস্থ্য পরিষেবার কাজ।

দেখুন ভিডিও:

কলেজ অধ্যক্ষ অমিতাভ রায় বলেন, ‘‘প্রতিদিন না হলেও সপ্তাহে কমপক্ষে তিনদিন করে একজন চিকিৎসক আসতেন এই কেন্দ্রে৷ সেই তিনদিন আমরা সবাই পরিষেবার সুযোগ পেতাম। কলেজ ক্যাম্পাসে একজন চিকিৎসক থাকা খুবই জরুরি৷ এই বিষয়টি জেলাশাসককেও জানানো হয়েছিল। তাই অপেক্ষায় রয়েছি।’’ তবে এই বিষয়ে প্রশাসনের কোনও বক্তব্য পাওয়া যায়নি৷

আরও পড়ুন: সিএবি’র বার্ষিক অনুষ্ঠানে গরহাজির ক্রিকেটাররা

লাল-নীল-গেরুয়া...! 'রঙ' ছাড়া সংবাদ খুঁজে পাওয়া কঠিন। কোন খবরটা 'খাচ্ছে'? সেটাই কি শেষ কথা? নাকি আসল সত্যিটার নাম 'সংবাদ'! 'ব্রেকিং' আর প্রাইম টাইমের পিছনে দৌড়তে গিয়ে দেওয়ালে পিঠ ঠেকেছে সত্যিকারের সাংবাদিকতার। অর্থ আর চোখ রাঙানিতে হাত বাঁধা সাংবাদিকদের। কিন্তু, গণতন্ত্রের চতুর্থ স্তম্ভে 'রঙ' লাগানোয় বিশ্বাসী নই আমরা। আর মৃত্যুশয্যা থেকে ফিরিয়ে আনতে পারেন আপনারাই। সোশ্যালের ওয়াল জুড়ে বিনামূল্যে পাওয়া খবরে 'ফেক' তকমা জুড়ে যাচ্ছে না তো? আসলে পৃথিবীতে কোনও কিছুই 'ফ্রি' নয়। তাই, আপনার দেওয়া একটি টাকাও অক্সিজেন জোগাতে পারে। স্বতন্ত্র সাংবাদিকতার স্বার্থে আপনার স্বল্প অনুদানও মূল্যবান। পাশে থাকুন।.