হায়দরাবাদ: বিরাটে মোহিত আসমুদ্র-হিমাচল। শুক্রবার হায়দরাবাদ ক্রিকেট অ্যাসোসিয়েশন স্টেডিয়ামে যে ইনিংসটা খেললেন ভারত অধিনায়ক, তার জন্য বোধহয় হাজার মাইল পথ হাঁটা যায়। একা বিরাট বিক্রমেই শেষ ক্যারিবিয়ানদের সমস্ত জারিজুরি। ওয়েস্ট ইন্ডিজ ব্যাটসম্যানদের দুরন্ত ব্যাটিং পারফরম্যান্স ধোপে টিকল না কোহলির ‘বিরাট’ ব্যাটিংয়ে। আর তাই ম্যাচ শেষে বিরাটকে ‘অ্যানিমেশন চরিত্র’ আখ্যা দিলেন ক্যারিবিয়ান দলনায়ক কায়রন পোলার্ড।

ওয়েস্ট ইন্ডিজের ২০৮ রানের বিশাল লক্ষ্যমাত্রা এদিন ম্লান হয়ে যায় বিরাটের রাজকীয় পারফরম্যান্সে। তবে সিরিজে পিছিয়ে পড়েও দলের ব্যাটিং পারফরম্যান্স এদিন আশ্বস্ত করেছে পোলার্ডকে। ম্যাচের পর সাংবাদিক সম্মেলনে মুম্বই ইন্ডিয়ান্স তারকা বলেন, ‘আমরা দুর্দান্ত ব্যাটিং করেছি। ২০০-র উপর রান স্কোরবোর্ডে তুলেছি যা অধিকাংশ ক্ষেত্রে তাড়া করা অসম্ভব। কিন্তু বোলিংয়ে সঠিক পরিকল্পনার অভাবে ম্যাচটা আজ হারতে হল আমাদের।’ এ প্রসঙ্গে অতিরিক্ত ২৩ রান, ১৪-১৫ ওয়াইড বলের বিষয়টি উল্লেখ করেন সফরকারী দলের অধিনায়ক।

পাশাপাশি পোলার্ড আরও বলেন, ‘তোমার সামনে যখন ভারতের মত কঠিন প্রতিপক্ষ, তখন অতিরিক্ত ডেলিভারি বিপদ ডেকে আনবেই।’ সবকিছুর মধ্যেও ম্যাচ থেকে ইতিবাচক জিনিসগুলো খুঁজে বার করে পরবর্তী ম্যাচে সমতা ফেরানোর লক্ষ্যে মাঠে নামতে চান পোলার্ড। একইসঙ্গে শিমরন হেটমেয়ারের রানে ফেরা স্বস্তি দিচ্ছে পোলার্ডকে। এরপর কোহলির ৫০ বলে অপরাজিত ৯৪ রানের ইনিংস সম্পর্কে জিজ্ঞেস করা হলে ক্যারিবিয়ান অধিনায়ক বলেন, ‘ও একজন অ্যানিমেশন চরিত্র। ও যে একজন বিশ্বমানের ব্যাটসম্যান সেটা ও প্রমাণ করতে মরিয়া থাকে সবসময়।’

উল্লেখ্য, দেশের জার্সিতে শুক্রবার টি-২০ ক্রিকেটে ৫০ বলে অপরাজিত ৯৪ রান ব্যক্তিগত সর্বোচ্চ স্কোর বিরাট কোহলির। এর আগে কোহলির ব্যক্তিগত সেরা টি-২০ স্কোর ছিল অপরাজিত ৯০। তবে অপরাজিত থাকলেও এবার সেঞ্চুরির স্বাদ পেলেন না কোহলি। আন্তর্জাতিক টি-২০ ক্রিকেটে এদিন আরও একটি রেকর্ড গড়েন বিরাট কোহলি। সবচেয়ে বেশি ১২বার ‘ম্যান অফ দ্য ম্যাচ’ পুরস্কার নিয়ে আফগানিস্তানের মহম্মদ নবির রেকর্ডে ভাগ বসান ভারত অধিনায়ক। তবে কোহলির পাশাপাশি বড় রানের লক্ষ্যমাত্রা তাড়া করার বিষয়ে ক্যারিবিয়ানদের বোলারদের কাছে এদিন ভারি ছিল লোকেশ রাহুলের ব্যাট।

৪০ বলে ৬২ রান করে ডাগ-আউট হন টিম ইন্ডিয়ার এই ডানহাতি ওপেনার। ইনিংসে চারটি ছয় ও পাঁচটি বাউন্ডারি হাঁকান রাহুল। এদিন আন্তর্জাতিক টি-২০ কেরিয়ারে এক হাজার পূর্ণ করেন কর্নাটকের এই ডানহাতি। সেই সঙ্গে এদিন দেশের হয়ে টি-২০ ম্যাচে সপ্তম হাফ-সেঞ্চুরিটিও করেন রাহুল।