স্টাফ রিপোর্টার, কলকাতা: আদালতের নির্দেশেই সম্প্রতি বিজেপির ‘গণতন্ত্র বাঁচাও যাত্রা’ নিয়ে বৈঠক হয়েছিল লালবাজারে৷ বৈঠকে উপস্থিত ছিলেন মুখ্য সচিব, স্বরাষ্ট্র সচিব এবং রাজ্য পুলিশের ৭ প্রধান৷ মুকুল রায় প্রতাপ বন্দ্যোপাধ্যায় এবং জয়প্রকাশ মজুমদার বিজেপির প্রতিনিধিত্ব করেছিলেন লালবাজারে৷ এই বৈঠকেরই ভিডিও চাইলো হাইকোর্ট। বুধভার ১২টার সময় শুনানি শুরু হওয়ার আগে কোর্টের কাছে এই ভিডিও জমা দিতে বলা হয়েছে৷

বিজেপির রাজনৈতিক রথযাত্রা সংক্রান্ত মামলার শুনানির কথা ছিল মঙ্গলবার৷ কিন্তু এদিন শুরুতে বিজেপির মামলা শুনতে চাননি কলকাতা হাইকোর্টের বিচারপতি তপব্রত চক্রবর্তী৷ কারণ বিজেপির রথযাত্রা সংক্রান্ত একটি মামলা ইতিমধ্যেই হাইকোর্টের প্রধান বিচারপতির দেবাশীষ কর গুপ্তের ডিভিশন বেঞ্চে রয়েছে৷ তপব্রত চক্রবর্তীর বক্তব্য ছিল প্রধান বিচারপতি আগামীকাল মামলা না শুনলে তিনি রথযাত্রা সংক্রান্ত মামলা শুনবেন৷

পড়ুন: ‘অধীরের সঙ্গে রাহুল গান্ধীর বাড়িতে গিয়েছিলেন শুভেন্দু’

এরপর বিজেপির পক্ষে আইনজীবী এস এস কাপুর আদালতের কাছে আবেদন করেন এই মামলা শোনার জন্য৷ তিনি বলেন এই মামলা শুধুমাত্র রাজ্য সরকার বনাম বিজেপি৷ এরসঙ্গে জন স্বার্থের কোনও বিষয় জড়িয়ে নেই৷ এরপর রাজ্যের অ্যাডভোকেট জেনারেল কিশোর দত্ত আদালতে জানান এই মামলা শুনানিতে চতাদের কোন আপত্তি নেই৷ এরপরই মামলা শোনার সিদ্ধান্ত নেন বিচারপতি তপব্রত চক্রবর্তী৷

পড়ুন: অভিবাসী দিবসে শরণার্থীদের জন্য মানবিক বার্তা মমতার

বিজেপির পক্ষে কৌসুঁলি বক্তব্য শোনার পর বিচারপতি তপোব্রত চক্রবর্তী লালবাজারে হওয়া মিটিংয়ের ভিডিও চেয়ে পাঠান৷ বিজেপির তরফে রথযাত্রার জন্য ২৪, ২৬ ও ২৮ ডিসেম্বরের এই তিনদিন দাবি করা হয়েছে৷ এই তিনদিন ছাড়া আর অন্য কোনদিন কী বিজেপি রথের জন্য বেছে নিতে পারে? সে বিষয়ে বিজেপির কাছে জানতে চেয়েছে হাইকোর্ট৷ পাশাপাশি রথযাত্রার সময় যাতে কোনও প্রকার অশান্তি না হয় সে বিষয়ে কী ব্যবস্থা নিচ্ছে বিজেপি সেটাও জানাতে বলা হয়েছে৷