স্টাফ রিপোর্টার, কলকাতা: ডেঙ্গু ইস্যুতে কলকাতা হাইকোর্টের ভর্ৎসনার মুখে রাজ্য সরকার৷ এ নিয়ে তারা যে রিপোর্ট জমা দিয়েছিল, সেই রিপোর্টকে অসম্পূর্ণ বললেন কলকাতা হাইকোর্টের ভারপ্রাপ্ত প্রধান বিচারপতি জ্যোর্তিময় ভট্টাচার্য৷ সেই রিপোর্ট আবার নতুন করে রাজ্যকে জমা দিতে বলেছেন তিনি৷ আগামিকাল, বৃহস্পতিবার ওই রিপোর্ট রাজ্য সরকারকে জমা দেওয়ার নির্দেশ দেওয়া হয়েছে কলকাতা হাইকোর্টের তরফে৷

ডেঙ্গু নিয়ে এমনিতেই জেরবার রাজ্য সরকার৷ সেপ্টেম্বরের গোড়া থেকে প্রায় রোজই বাড়ছে ডেঙ্গু আক্রান্তের সংখ্যা৷ একই সঙ্গে লাফিয়ে লাফিয়ে বাড়ছে মৃতের সংখ্যা৷ আর সেই সংখ্যা নিয়েই শুরু হয়েছে যত চাপানউতোর৷ ডেঙ্গুতে মৃত্যু নিয়ে রাজ্য সরকারের দেওয়া সংখ্যার সঙ্গে একমত নয় বিরোধী রাজনৈতিক দলগুলি থেকে শুরু করে অন্য অনেকেই৷ যদিও মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় বারবার দাবি করেছেন যে, রাজ্যে ডেঙ্গু পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণেই রয়েছে৷ অহেতুক বিভ্রান্তি ছড়ানো হচ্ছে৷

এই পরিস্থিতিতে কলকাতা হাইকোর্টে জনস্বার্থ মামলা হয়৷ একটা নয়৷ তিনটে জনস্বার্থ মামলা দায়ের হয়৷ সেই মামলার প্রথম শুনানিতে কলকাতা হাইকোর্টের ভারপ্রাপ্ত প্রধান বিচারপতি রাজ্য সরকারের কাছ থেকে এ নিয়ে রিপোর্ট চান৷ নির্ধারিত সময়ের মধ্যেই রাজ্য সরকারের তরফে হাইকোর্টে ওই রিপোর্ট জমা দেওয়া হয়৷

এবার ওই রিপোর্ট নিয়েই অসন্তোষ প্রকাশ করলেন কলকাতা হাইকোর্টের ভারপ্রাপ্ত প্রধান বিচারপতি জ্যোর্তিময় ভট্টাচার্য৷ আদালত সূত্রে খবর, রাজ্য সরকার যে রিপোর্ট দিয়েছিল, তাতে শুধু রাজ্যের সরকারি হাসপাতালগুলিতে ডেঙ্গুতে আক্রান্ত হয়ে কতজন মারা গিয়েছেন, তা রয়েছে৷ কিন্তু বেসরকারি হাসপাতালের মৃত্যুগুলি উল্লেখ করা নেই৷ আর তা নিয়েই হাইকোর্টের ভারপ্রাপ্ত প্রধান বিচারপতি প্রশ্ন তুলেছেন৷ কেন বেসরকারি হাসপাতালে ডেঙ্গুতে মৃতদেহ নাম নেই, তা-ও জানতে চেয়েছেন তিনি৷ সম্পূর্ণ রিপোর্ট বৃহস্পতিবার জমা দেওয়ার নির্দেশও দিয়েছেন৷

- Advertisement -