চেন্নাই: প্রায় এক দশক আগের কথা। ইন্ডিয়ান প্রিমিয়র লিগের তৃতীয় সংস্করণে ‘মঙ্গুজ’ নামক নয়া আকৃতির ব্যাট নিয়ে মাঠে নেমে সাড়া ফেলে দিয়েছিলেন প্রাক্তন অস্ট্রেলিয়া ওপেনার ম্যাথু হেডেন। যে ব্যাটের স্ট্রাইকিং প্লেট সাধারণ ব্যাটের তুলনায় অর্ধেক আর ব্যাটের হ্যান্ডেলটি সাধারণ ব্যাটের তুলনায় দ্বিগুণ। মঙ্গুজ ব্যাট নিয়ে পরবর্তীতে সব বিধ্বংসী ইনিংস খেললেও প্রাথমিক ভাবে চেন্নাই সুপার কিংস ওপেনারের ব্যাট নাপসন্দ ছিল অধিনায়ক মহেন্দ্র সিং ধোনির।

সম্প্রতি চেন্নাই সুপার কিংস ফ্র্যাঞ্চাইজির লাইভ আড্ডায় উপস্থাপক রূপা রমনীর সঙ্গে মঙ্গুজ ব্যাট নিয়ে ধোনির প্রাথমিক অনীহার কথা ব্যক্ত করেন হেডেন। প্রাক্তন অজি তারকা ব্যাটসম্যানের কথায়, তিনি প্রথম যখন আইপিএলে মঙ্গুজ ব্যাট নিয়ে এসেছিলেন তখন ব্যাট নিয়ে অনেকেই সন্দেহপ্রকাশ করেছিলেন। তাঁদের মধ্যে ধোনি ছিলেন অন্যতম। অধিনায়ক ধোনি তাঁকে ম্যাচে ওই ব্যাট ব্যবহার করতেও বারণ করেছিলেন বলে জানিয়েছেন হেডেন।

‘তুমি জীবনে যা চাও আমি তোমায় সবকিছু দিতে প্রস্তুত। কিন্তু এই ব্যাট ব্যবহার করতে দিতে রাজি নই। দয়া করে এই ব্যাটটা নিয়ে তুমি মাঠে নেমো না।’ দলের ওপেনিং ব্যাটসম্যানকে ঠিক এমনই আকুতি করে ম্যাচে মঙ্গুজ ব্যাট ব্যবহার থেকে বিরত থাকতে বলেছিলেন ধোনি। সিএসকে লাইভ অনুষ্ঠানে এসে এমনটাই জানালেন হেডেন।

কিন্তু হেডেন পর্যাপ্ত হোমওয়ার্ক না করে নতুন ব্যাট ব্যবহার করে তাঁর ফ্র্যাঞ্চাইজিকে বিপদে ফেলার পক্ষপাতী ছিলেন না। অবশেষে অনেক কষ্টে অধিনায়ক ধোনিকে মঙ্গুজ ব্যাট নিয়ে মাঠে নামার জন্য রাজি করাতে পেরেছিলেন বিধ্বংসী বাঁ-হাতি ওপেনার। কীভাবে ধোনিকে তিনি আশ্বস্ত করেছিলেন সেই প্রসঙ্গে বলতে গিয়ে হেডেন বলেন, ‘আমি ধোনিকে বলেছিলাম যে বন্ধু আমি গত দেড় বছর ধরে এই ব্যাট ব্যবহার করে অভ্যস্ত হয়ে উঠেছি। এই ব্যাটের মাঝামাঝি বল সংযোগ হলে কমপক্ষে ২০মিটার দূরত্বে বল যাবেই।’ এভাবে ধোনিকে আশ্বস্ত করার পরেও মঙ্গুজ ব্যবহার করার সিদ্ধান্তটা তাঁর কাছে অনেক সাহসী ছিল বলে জানান হেডেন।

হেডেনের কথায় আমি নিশ্চিত ছিলাম যে এই ব্যাটে আমি সফল হবোই। এরপর দু’টি মরশুমে সাফল্যের সঙ্গে আইপিএলে মঙ্গুজ ব্যাটে পারফর্ম করেন বলে জানান অস্ট্রেলিয়ার দু’বারের বিশ্বজয়ী দলের সদস্য। উল্লেখ্য, ২০১০ আইপিএলেই মঙ্গুজ ব্যাটে দিল্লি ডেয়ারডেভিলসের (বর্তমানে দিল্লি ক্যাপিটালস) বিরুদ্ধে ১৮৬ রান তাড়া করতে নেমে ৯৩ রানের মারকাটারি ইনিংস খেলেছিলেন হেডেন। চলতি মাসের শুরুতেই হেডেনের সঙ্গে অনলাইন আড্ডায় তাঁর মঙ্গুজ ব্যাটের সেই বিধ্বংসী ইনিংসের স্মৃতিচারণ করেছিলেন রায়না।

পপ্রশ্ন অনেক: চতুর্থ পর্ব

বর্ণ বৈষম্য নিয়ে যে প্রশ্ন, তার সমাধান কী শুধুই মাঝে মাঝে কিছু প্রতিবাদ