জয়পুর: দলিত বিক্ষোভের কারণে অত্যন্ত দুঃখ পেয়েছিলেন। সেই দুঃখ সহ্য করতে না পেরে অবশেষ আত্মহতা করলেন এক রাষ্ট্রীয় স্বয়ং সেবক সংঘের কর্মী রঘুবীর সরণ আগরওয়াল।

চাঞ্চল্যকর এই ঘটনাটি ঘটেছে রাজস্থানের রাজধানী শহর জয়পুরে। রবিবার খুব সকালের দিকে নিজের গায়ে পেট্রোল ঢেলে আগুন লাগিয়ে দেন ৪৫ বছরের রঘুবীর। শুধু তাই নয়, আগুন লাগিয়ে দীর্ঘ প্রায় ১০০ মিটার রাস্তা তিনি দৌড়ে যান ‘ভারতমাতার জয়’ চিৎকার করতে করতে।

আরও পড়ুন- দলিত বিক্ষোভে রণক্ষেত্র রাজ্যে নামানো হল সেনা, জারি কার্ফু

ভোরের দিকে রাস্তায় লোকজন কম ছিল। ফাঁকা রাস্তায় নিজের আত্মহত্যার চেষ্টায় অনেকটাই সফল হয়েছিলেন রঘুবীর সরণ। অবশেষে তাঁকে আটকান স্থানীয় দুধ বিক্রেতা অশোক শর্মা। তাঁর কথায়, “ভোর পাঁচটা নাগাদ বেশ অন্ধকার ছিল। সেই সময় গায়ে আগুন দিয়ে একজনকে ‘ভারতমাতার জয়’ বলে চিৎকার করতে দেখে ঝাপিয়ে পড়ি।” গায়ে জল ঢেলে আগুন নেভানো হয়। ঘটনাস্থল থেকে একটা ফাঁকা পেট্রোলের বোতল উদ্ধার করেছে পুলিশ।

আশোক শর্মা এবং স্থানীয় কয়েকজনের সহযোগিতায় সয়াই মানসিং হাসপাতালে নিয়ে যাওয়া হয় রঘুবীর সরণ আগরওয়ালকে। যদিও ততক্ষণে তাঁর দেহের প্রায় ৮০ শতাংশ পুড়ে গিয়েছে। এই মুহূর্তে চিকিৎসার জন্য তাঁকে দিল্লিতে নিয়ে যাওয়া হয়েছে।

আরও পড়ুন- গেরুয়া রাজ্যে বিজেপির দলিত বিধায়কের বাড়িতে আগুন উচ্চবর্ণের

জয়পুরের বৈশালী নগর এলাকার ক্রণ প্লাজায় থাকতেন ব্যবসায়ী রঘুবীর সরণ আগরওয়াল। কিরণ মেডিকেল নামের একটি ওষুধের দোকান রয়েছে তাঁর। রবিবার সকালে স্থানীয় আম্রপলি ক্রসরডে গিয়ে গায়ে আগুন দিয়ে আত্মহত্যার চেষ্টা করেন তিনি। রঘুবীরের ঘনিষ্ঠ মহল সূত্রে জানা গিয়েছে, দেশ জুড়ে দলিত বিক্ষোভ নিয়ে অত্যন্ত চিন্তিত ছিলেন তিনি। গত সোমবারের ভারত বন্ধের ঘটনাতেও খুব ব্যাথিত হয়েছিলেন। সেই কারণেই রঘুবীর এই চরম সিদ্ধান্ত নিয়ে ফেলেছেন বলে প্রাথমিক তদন্তে অনুমান পুলিশের।