নিউজ ডেস্ক: দল বদল করতে প্রস্তুত মুকুল পুত্র শুভ্রাংশু রায়। সাংবাদিকদের মুখোমুখি হয়ে শনিবার এই কথা স্পষ্ট করে জানিয়ে দিয়েছেন বীজপুরের বিধায়ক। তবে দু’টি শর্ত দিয়েছেন।

এই বিষয়টি প্রকাশ্যে আসতেই সোশ্যাল নেটওয়ার্কিং সাইট ফেসবুকে তাঁর লেখা পোস্ট ঘিরে শুরু হয়েছে নতুন বিতর্ক। শুভ্রাংশু রায়ের বিজেপি যোগ দেওয়ার শর্তএর খবর সংবাদ মাধ্যমে প্রকাশিত হতেই নিজের ফেসবুকের ওয়ালে কালো ব্যাকগ্রাউন্ডে সাদায় হরফে দু’টি বাক্য লিখেছেন যা থেকে শুরু হয়েছে বিতর্ক।

শুভ্রাংশু রায় ফেসবুকে লিখেছেন, “অপমান হতে হতে দেওয়ালে ঠেকেছে পিঠ, অগ্নিপরীক্ষা দিতে দিতে হৃদয়টা পুরো ঝলসে গেছে।।” এই পোস্টের সঙ্গে রাজনীতি বা তাঁর বিজেপি যোগের কোনও সূত্র আছে কিনা তা অবশ্য স্পষ্ট নয়।

আরও পড়ুন: বাবার পথ ধরে শর্তসাপেক্ষে বিজেপিতে যোগ দিতে চান মুকুল-পুত্র শুভ্রাংশু

কিন্তু সাংবাদিকদের মুখোমুখি হয়ে অগ্নিপরীক্ষার প্রসঙ্গ তুলেছিলেন শুভ্রাংশু। তিনি বলেছিলেন, “আমি বারংবার সীতার অগ্নিপরীক্ষার মতো পরীক্ষা দিয়ে যাচ্ছি যে আমি দলে আছি।” তবে এই পরীক্ষা দলের কেবলমাত্র সংবাদ মাধ্যমের কাছেই তাঁকে দিতে হয়েছে বলে দাবি করেছিলেন বীজপুরের বিধায়ক। তৃণমূলে ছিলেন, আছেন এবং থাকবেন বলে দাবি করেও বিজেপি শিবিরে নাম লেখানোর বিষয়ে শর্ত চাপান ‘হাপুন’।

শুক্রবার বারাকপুর লোকসভার শ্যামনগরে দলীয় প্রার্থী দীনেশ ত্রিবেদীর হয়ে প্রচার করেন তৃণমূলের যুবরাজ অভিষেক বন্দ্যোপাধ্যায়। সেই প্রচার মিছিল এবং সভায় হাজির ছিলেন না বীজপুরের বিধায়ক শুভ্রাংশু রায়। শারীরিক অসুস্থতার কারণ দেখিয়েছিলেন বারাকপুর লোকসভা কেন্দ্রের অন্তর্গত বিধানসভার বিধায়ক। সেই সময় থেকেই জল্পনা শুরু হয়েছিল। যা জোরাল হয়েছে শনিবার দুপুরে।

২০১৭ সালের নভেম্বর মাসে গেরুয়া নামাবলি গায়ে চাপান তৃণমূলের প্রতিষ্ঠাতা সদস্য মুকুল রায়। সেই সময় থেকেই তাঁর পুত্র শুভ্রাংশুর রাজনৈতিক অবস্থান নিয়ে শুরু হয় জল্পনা। যদিও একাধিকবার এই নিয়ে মুখ খুলেছেন বীজপুরের বিধায়ক। সাফ জানিয়ে দিয়েছিলেন যে তিনি তৃণমূলের সঙ্গেই আছে। গত মাসে বারাকপুরের দাপুটে তৃণমূল নেতা অর্জুন সিং বিজেপিতে নাম লেখান। শুভ্রাংশুবাবুকে নিয়ে জোরাল হয় জল্পনা। দল তাঁকে দায়িত্ব দিলে রেকর্ড অঙ্কে বীজপুর থেকে দীনেশ ত্রিবেদী লিড দেবে বলে জানান শুভ্রাংশু।

এতকিছুর পরে শনিবার শুভ্রাংশু রায়ের মুখে বিজেপি যোগ(শর্ত সাপেক্ষ হলেও) ঘিরে নতুন সমীকরণ শুরু হয়েছে রাজ্য রাজনীতিতে। যদিও এখনও আনুষ্ঠানিকভাবে কোনও কিছুই ঘোষণা করেননি বীজপুরের বিধায়ক। সপ্তদশ লোকসভা নির্বাচনের পঞ্চম দফায় আগামী মাসের ছয় তারিখে বারাকপুর কেন্দ্রে ভোট গ্রহণ হবে।