নয়াদিল্লি : হাসপাতালে ভর্তি হওয়ার পর বড়সড় বিলের অঙ্ক মাথাব্যথা কারণ অনেকেরই। তাই স্বাস্থ্যবিমার দ্বারস্থ হন কম বেশি প্রায় সবাই। স্বাস্থ্য বিমা ব্যক্তিগত হতে পারে, আবার হতে পারে গ্রুপ পলিসি বা অফিস থেকে দেওয়া বিমা।

তবে এনেক সময়েই বিমা থাকলেও বেশ কিছুটা টাকা নিজের পকেট থেকে দিতে হয় গ্রাহককে। যা সমস্যা তৈরি করে।

অনেক গ্রাহকের মনেই প্রশ্ন যে অতিরিক্ত টাকা পকেট থেকে দিতে হচ্ছে, যদি সেই টাকাটাও স্বাস্থ্য বিমার আওতায় মেলে, সেটা সুবিধাজনক হয়। বিশেষজ্ঞরা বলছেন। এটা সম্ভব। একটি ক্লেমে আপনি ব্যবহার করতে পারেন একাধিক আলাদা হেল্থ পলিসি। সেক্ষেত্রে হাসপাতালে রিইমবার্সমেন্ট পদ্ধতিতে টাকা দিতে হবে।

বিশেষজ্ঞরা বলছেন গ্রুপ পলিসি, ব্যক্তিগত পলিসি ও টপ আপ হেলথ ইনসিওরেন্স থাকলে এই কাজ করতে পারবেন কোনও গ্রাহক। মনে করা যাক কোনও গ্রাহকের অফিস থেকে যে হেলথ পলিসি দেওয়া হয়, তার পরিমাণ ৩ লক্ষ। ওই গ্রাহকের ব্যক্তিগত হেলথ পলিসিও ৩ লক্ষের।

হাসপাতালের বিল যদি সেক্ষেত্রে দু লক্ষ হয়, তবে দুটি পলিসি থেকেই টাকা ক্লেম করতে পারেন ওই গ্রাহক। আবার যে কোনও একটি পলিসি থেকেও পুরো টাকা ক্লেম করা যাবে।

অন্যদিকে, হাসপাতালের বিল চার লক্ষ হলে অফিস পলিসি থেকে ৩ লক্ষ ও ব্যক্তিগত পলিসি থেকে ১ লক্ষ টাকার ক্লেম করা যেতে পারে।

একটি বিষয় খেয়াল রাখতে হবে কোন কোন পলিসি কি কি ক্ষেত্রে টাকা দেওয়ার শর্ত রেখেছে। সেই শর্তগুলি প্রযোজ্য কীভাবে হচ্ছে, সেদিকেও নজর রাখা দরকার।

বেশ কয়েকটি হেলথ পলিসি হাসপাতালে ভর্তির আগে টেস্টের জন্য টাকা দেয় না, সেক্ষেত্রে গ্রাহকের কোন পলিসি ওই ক্ষেত্রে টাকা দেবে, তা জেনে আবেদন করতে হবে। পলিসি হোল্ডারদের একাধিক প্ল্যান থাকতে পারে।

কোনও চিকিৎসার খরচ একটি পলিসি থেকে পর্যাপ্ত না পেলে, আরেকটিতে আবেদন করাই যায়। উল্লেখ্য একটি স্বাস্থ্য বিমা করাতে গেলে, প্রথমেই জানতে চাওয়া হয় ওই গ্রাহকের আর কোনও স্বাস্থ্য বিমা রয়েছে কীনা। কারণ সেই অনুযায়ী গ্রাহককে ক্লেম করার পরামর্শ দেওয়া হয়।

পচামড়াজাত পণ্যের ফ্যাশনের দুনিয়ায় উজ্জ্বল তাঁর নাম, মুখোমুখি দশভূজা তাসলিমা মিজি।