ছোটো বেলা থেকে শুনে এসেছি এটা খেলে পুষ্টি হয় আর ওটা খেলে না। সম্প্রতি একটি রিপোর্ট বলছে আমাদের দেশে নিত্যদিন প্রায় ১৩.৭৬ শতাংশ মানুষ নিজেদের স্বাস্থ্যের কারণে মানষিক রোগে ভোগে। এর পাশাপাশি ভারতের শহরে এবং গ্রামে মোট ১৩.৫ কোটি মানুষ স্থূল হয়ে উঠছেন এবং এই তালিকায় প্রতি বছর যুক্ত হচ্ছে আরও ১ কোটি করে মানুষ। আর এই কারণে সঠিক পুষ্টির খাবার খাওয়া আমাদের জন্য খুব প্রয়োজন। করোনার সময়ে স্বাস্থ্যের জন্য পুষ্টি, ইমিউনিটি শব্দগুলি মানুষের জীবনে আরও বেশি মাত্রা যোগ করেছে।

অনেকে মনে করেন স্বাস্থ্যকর খাবার বা সামগ্রী অনেক ব্যয়বহুল। শুনলে হয়তো অবাক হবেন স্বাস্থ্যকর খাবার মোটেয় ব্যায়বহুল নয়। পাশাপাশি এই খাবার বাড়িতেও তৈরি করা যায়। আমরা অনেক সময়ে স্বাস্থ্যকর খাবারের জন্য বাইরে তাকায় ঠিকই তবে সত্যি হল আমাদের রান্নাঘরে ইতিমধ্যে প্রচুর স্বাস্থ্যকর খাবার রয়েছে। এই খাবারের সরঞ্জামগুলির সঠিক ব্যবহার করা উচিৎ এবং আরও কিছু তাতে অন্তর্ভুক্ত করা উচিৎ। এই প্রতিবেদনে এমন কিছু পুষ্টিকর খাবার দেখাবো যা সচরাচর রান্নাঘরে আমাদের হাতের পাশেয় থাকে।

দই

দই নামটার সঙ্গে আমরা সকলে পরিচিত। এককথায় দই প্রায় প্রতিটা মানুষ তাদের পছন্দের তালিকায় রাখে। তবে পুষ্টির জন্য দই কতটা উপকারী জানেন কি? দইয়ে রয়েছে প্রোটিন ছাড়াও ক্যালসিয়াম, ভিটামিন বি ২, ভিটামিন বি ১২, পটাশিয়াম এবং ম্যাগনেসিয়াম । আর তায় দই খেলে খাবার হজম ভালো হয়, মানষিক চাপ কমে এবং দীর্ঘস্থায়ী রোগের ঝুঁকি কম হয়ে থাকে।

ডাল

যে কোনও ধরণে ডাল আমাদের শরীরের পুষ্টির জন্য পাওয়ার হাউস। প্রতিটা ডাল পুষ্টিগুনে ভরপুর এবং স্বাস্থ্যের জন্য খুব উপকারী। ডালে থাকা ফাইবার এবং প্রোটিনের মান আমাদের পাচনতন্ত্রকে ঠিক রাখতে সাহায্য করে। এর পাশাপাশি বিভিন্ন কোষের পুনোয়ার জন্মের ক্ষেত্রে মুখ্য ভূমিকা পালন করে থাকে এই শস্য। বিভিন্ন ধরণের ডালে রয়েছে ভিটামিন এ, বি, সি এবং ই সঙ্গে ম্যাগনেসিয়াম, আয়রন এবং দস্তা।

মশলা

ভারতকে অনেকে বলে থাকে স্বাদযুক্ত মশলার দেশ। এই বিভিন্ন ধড়নের মশলায় নানা ঔষধি গুণাবলী রয়েছে। ভারতের অনেক মশলা অ্যান্টি ইনফ্লেমেটরি, অ্যান্টি ব্যাক্টেরিয়াল, এবং অ্যান্টি অস্কিডেন্ট বৈশিষ্টের জন্য পরিচিত রয়েছে। অনেকে মনে করে মশলা খেলে শরীরের ক্ষতি হয়, তবে তাদের জানিয়ে রাখা ভালো মশলা আমাদের ক্ষতগুলি সারিয়ে তুলতে, ফ্রি র‍্যাডিক্যালগুলির দ্বারা শরীরের নানা ক্ষতি মেটাতে, রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা বাড়াতে এবং ভয়ানক রোগের হাত থেকে রক্ষা পেতে সাহায্য করে থাকে।

রসুন

রসুন রান্নার আরেকটি প্রধান উপাদান যা প্রায় সকলের হেসেলে থাকে। রসুনের নিজস্ব একটি স্বাদ রয়েছে যা কোনও খাবারে দিলে খাবারকে সুস্বাদু করে তোলে। রসুন রান্নার জনপ্রিয় একটি উপাদান যা অনেক সময়ে ঔষধের কাজে ব্যবহার করা হয় রান্নায়। নিন্ম রক্তচাপ, উচ্চ কোলেস্টেরল, হৃদরগ, ক্যান্সার এবং ফাইব্রোসিসের ঝুঁকি কমিয়ে থাকে রসুন। রসুনে থাকা সালফারযুক্ত উপাদান ক্যান্সার প্রিতিরোধে সক্ষম বলে প্রমাণিত।

লাল-নীল-গেরুয়া...! 'রঙ' ছাড়া সংবাদ খুঁজে পাওয়া কঠিন। কোন খবরটা 'খাচ্ছে'? সেটাই কি শেষ কথা? নাকি আসল সত্যিটার নাম 'সংবাদ'! 'ব্রেকিং' আর প্রাইম টাইমের পিছনে দৌড়তে গিয়ে দেওয়ালে পিঠ ঠেকেছে সত্যিকারের সাংবাদিকতার। অর্থ আর চোখ রাঙানিতে হাত বাঁধা সাংবাদিকদের। কিন্তু, গণতন্ত্রের চতুর্থ স্তম্ভে 'রঙ' লাগানোয় বিশ্বাসী নই আমরা। আর মৃত্যুশয্যা থেকে ফিরিয়ে আনতে পারেন আপনারাই। সোশ্যালের ওয়াল জুড়ে বিনামূল্যে পাওয়া খবরে 'ফেক' তকমা জুড়ে যাচ্ছে না তো? আসলে পৃথিবীতে কোনও কিছুই 'ফ্রি' নয়। তাই, আপনার দেওয়া একটি টাকাও অক্সিজেন জোগাতে পারে। স্বতন্ত্র সাংবাদিকতার স্বার্থে আপনার স্বল্প অনুদানও মূল্যবান। পাশে থাকুন।.