কলকাতা: ফের বিস্ফোরক হাসিন জাহান৷ রবিবার আলিশবার বক্তব্যের পর সোমবার সাংবাদিকদের মুখাোমুখি হলেন হাসিন জাহান৷ এদিন আলিপুর আদালতে শামির বিরুদ্ধে গোপন জবানবন্দি দেন হাসিন৷ প্রায় দুঘন্টা ধরে তাঁর গোপন জবানবন্দি রেকর্ড করা হয়৷ এরপর মুখ্যমন্ত্রীর কাছে সাহায্য চাইতে মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের বাড়ি ছুটে যান হাসিন৷ সেখানে মুখ্যমন্ত্রীর সঙ্গে দেখা করার আবেদন জানিয়ে এসেছেন তিনি৷

পরে সাংবাদিকদের প্রশ্নের মুখে হাসিন বলেন, ‘সবকিছু প্রকাশ্য আসা উচিত৷ শামির বিরুদ্ধে আজ জবানবন্দি দিলাম৷ শামি-আলিশবা দুজনেই মিথ্যে কথা বলেছে৷ এর শেষ দেখতে চাই৷’

শুধু তাই নয়, সাংবাদমধ্যামের সামনে এদিন ভেঙে পড়েন শামির স্ত্রী৷ তিনি জানান, ‘এই পরিস্থিতির সঙ্গে আর লড়াই করতে পারছি না, পুলিশের কাছে অনুরোধ করব শামিকে দ্রুত গ্রেফতার করা হোক৷’ কাঠগড়ার বিচারের আগেই শামির জনসমক্ষের বিচার চেয়ে হাসিন বলেন, ‘শামিকে সবার সামনে নিয়ে আসুক সাধারণ মানুষ৷ প্রশ্ন করুন ও কেন সমানে মিথ্যে বলে চলেছে৷’

আরও পড়ুন- শামিকে দোষমুক্ত করতে প্রমাণ দিতে পারি: আলিশবা

বিস্ফোরক হাসিন আরও জানিয়েছেন, ‘ এটা আমার লড়াই৷ আলিশবার বক্তব্য প্রকাশ পেতে  আপনারা অনেকেই শামিকে সমর্থন করছেন৷ কিন্তু একজন নারী হিসেবে আমি নূন্যতম সম্মানটা আশা করেছিলাম৷’ আলিশবা তাঁর বক্তব্যে মিথ্যে বলেছেন বলেও অভিযোগ করেছেন হাসিন৷

হাসিনের একগুচ্ছ অভিযোগের পাল্টা দিয়ে এর আগে শামি জানিয়েছিলেন, তাঁর সোশ্যাল মিডিয়ার বিভিন্ন অ্যাকাউন্টের পাসওয়ার্ড রয়েছে হাসিনের কাছে৷ শুধু তাই নয়, হাসিনই সোশ্যাল মিডিয়ায় কারচুপি করে মিথ্যে তথ্য রটাচ্ছে বলে গুরুতর অভিযোগ করেছিলেন ভারতীয় পেসার৷ এদিন সেই প্রসঙ্গ তুলে ধরে ফের বিস্ফোরক মন্তব্য করেন হাসিন৷ তিনি জানান, ‘আলিশবার সঙ্গে শামির নোংড়া সম্পর্ক রয়েছে৷ শামি নিজেই ঐসব চ্যাট করেছে৷ আমার কাছে ওর সোশ্যাল মিডিয়ার পাসওয়ার্ড থাকলে আমি আরও আগে এই সব প্রকাশ্যে আনতাম৷’

চাঞ্চল্যকর অভিযোগ এনে হাসিন সঙ্গে জুড়েছেন, ‘আলিশবা শুুধুই শামির সঙ্গে ব্রেকফাস্ট করেই বেড়িয়ে যায়নি৷ প্ল্যানিং করেই ওরা সেদিন দেখা করেছিল৷ দুজনের সেই সাক্ষাৎ শেষ হয় বিছানায় গিয়ে৷’

আরও পড়ুন- শামির চাপেই ‘ভুল তথ্য’ দিয়েছিলেন হাসিন

হাসিনের অভিযোগ খতিয়ে দেখতে ইতিমধ্যেই দক্ষিণ আফ্রিকা সফরে শামির হোটেলের ভিডিও ফুটেজ দেখার চেষ্টা শুরু করেছে লালবাজারের তদন্তকারী দল৷ ইতিমধ্যেই প্রোটিয়া সফরের ভিডিও খতিয়ে দেখতে আলাদতের সম্মতি পেয়েছে তদন্তকারীরা৷

অন্যদিকে প্রোটিয়া সফর শেষে শামি ১৭ ও ১৮ ফেব্রুয়ারি দুবাইয়ের হোটেলে ছিলেন বলেই জানিয়েছে বিসিসিআই৷