লন্ডন: ভারতের বিরুদ্ধে হারের পর থেকেই সমর্থকদের একের পর এক রোষের মুখে পাক ক্রিকেটাররা। শুধু সমর্থকরাই নন, পাক ক্রিকেটারদের সমালোচনায় বিদ্ধ করতে ছাড়েননি প্রাক্তন পাক ক্রিকেটাররাও। দলের ক্রিকেটারদের দায়িত্বজ্ঞানহীন পারফরম্যান্স, সর্বোপরি অধিনায়ক সরফরাজের ফিটনেস ম্যাচ হারের পর নেটিজেনদের চর্চার বিষয়বস্তু হয়ে দাঁড়ায়।

ম্যাচ হারের পর সমালোচনায় জর্জরিত পাক অধিনায়ক দলের ছেলেদের হুঁশিয়ার বার্তা দিয়ে জানান, দেশে তিনি একা ফিরবেন না। সব বুঝেশুনে আসরে নামে পাক ক্রিকেট বোর্ড। এরইমধ্যে নতুন বিতর্কে পাক পেসার হাসান আলি। ঘরে-বাইরে প্রবল সমালোচনের মধ্যেই ভারতীয় দলকে বিশ্বকাপ জয়ের জন্য শুভেচ্ছা জানিয়ে রোষের মুখে পড়লেন তিনি। শেষমেষ বাধ্য হলেন পিছু হটতে।

ঘটনার সূত্রপাত ভারত-পাকিস্তান ম্যাচের পরদিন এক সাংবাদিকের টুইট ঘিরে। পাকিস্তানকে বিধ্বস্ত করার পরদিন ভারতীয় দলকে শুভেচ্ছা জানিয়ে এক মহিলা সাংবাদিক টুইটে লেখেন, ‘দারুণ জয় ও আমাদের উপভোগ করার মত সুন্দর মুহুর্ত উপহার দেওয়ার টিম ইন্ডিয়াকে অভিনন্দন। ভারতবাসী হিসেবে গর্বিত। ভারতীয় দল এবার বিশ্বকাপ ট্রফি ছিনিয়ে নিয়ে এসো।’

এত অবধি সব ঠিকঠাকই ছিল। কিন্তু বিতর্কের সূত্রপাত ভারতীয় সাংবাদিকের ওই টুইটে পাক পেসার হাসান আলি প্রত্যুত্তরে লেখেন, ‘আপনার আশা সম্পূর্ণ হোক, অভিনন্দন।’ পরে সেই টুইট মুছে ফেললেও ততক্ষনে যা হওয়ার হয়ে গিয়েছে। টুইটের প্রতিক্রিয়ায় পাক পেসারকে পুনরায় সমালোচনায় বিদ্ধ করতে শুরু করে দেয় নেটিজেনরা। নেটিজেনদের চাপের মুখে পড়েই যে টুইটটি মুছে ফেলতে বাধ্য হন তিনি, তা একপ্রকার পরিষ্কার হয়ে যায়।

উল্লেখ্য ভারত ম্যাচে পাক ক্রিকেটারদের হতশ্রী পারফরম্যান্সের মধ্যে এই পাক পেসারের পারফরম্যান্স ছিল অন্যতম। ওই ম্যাচে রোহিত শর্মার উইকেট তুলে নিলেও ভারতীয় ব্যাটসম্যানদের সামনে দেদার রান (৮৪) খরচ করেছিলেন হাসান আলি। ম্যাচ হারের পর ইউটিউব চ্যানেলে হাসান আলিকে সমালোচনেত বিঁধে প্রাক্তন স্পিডস্টার শোয়েব আখতার জানান, ওর বলে গতিও যথেষ্ট নেই সেইসঙ্গে লেংথের অভাব। স্বল্প উচ্চতার কারণে হাসানের লাইন-লেংথে প্রভাব পড়ে।

ম্যাঞ্চেস্টারে বৃষ্টিবিঘ্নিত ম্যাচে ডাকওয়ার্থ-লুইস নিয়মে পাকিস্তানকে ৮৯ রানে পরাজিত করে টিম ইন্ডিয়া।