চণ্ডীগড়: টানা ৩৮ দিন ধরে পুলিশের সঙ্গে লুকোচুরি খেলেছিল হানিপ্রীত ইনসান৷ বোরখার আড়ালে মুখে ঢেকে দিল্লিতে আইনজীবীর সঙ্গে দেখাও করেছিল৷ এবার সে মুখ ঢাকল ওড়নায়৷

আদালতের নির্দেশে ৬ দিনের পুলিশি হেফাজতে গিয়েছে ‘ধর্ষক বাবা’ রামরহিমের দত্তক কন্যা৷ তার বিরুদ্ধে রাষ্ট্রদ্রোহ ও হিংস ছড়ানোর অভিযোগ দায়ের করেছে হরিয়ানা পুলিশ৷

এই মামলায় ডেরা সাচ্চা সৌদার প্রধান রামরহিম সিংকে আগেই জেলে পাঠানো হয়েছে৷ তাকে গ্রেফতার করার পর থেকেই উধাও হয়ে যায় হানিপ্রীত৷ আচমকা মঙ্গলবার জাতীয়স্তরের একাধিক সংবাদমাধ্যমের সামনে এসে সে আত্মসমর্পণের কথা জানায়৷ এরপরেই পুলিশ হানিপ্রীতকে গ্রেফতার করে৷

বুধবার পঞ্চকুলা আদালতে ওড়নায় মুখ ঢেকে আসে হানিপ্রীত৷ মক্কেলের হয়ে আইনজীবী জানান, হানিপ্রীত মানসিক চাপের শিকার৷

 

 

 

 

ধরা দেওয়ার আগে থেকেই ‘গুরু’ রামরহিমের প্রধান শিষ্যা নিজেকে নির্দোষ বলে দাবি করেছে৷ অভিযোগ, ডেরা সাচ্চা সৌদার আশ্রমে তারই মদতে একাধিক মহিলাকে দিনের পর দিন ধর্ষণ করেছে রামরহিম সিং৷ পুলিশ তদন্তে নেমে রামরহিমকে গ্রেফতার করেতই অগ্নিগর্ভ হয়ে গিয়েছিল পরিস্থিতি৷ পরে ডেরা সাচ্চার প্রধান কার্যালয় থেকে উদ্ধার করা হয় প্রচুর আগ্নেয়াস্ত্র৷ সিল করে দেওয়া হয়েছে সেই স্থান৷

আগেই হানিপ্রীতের প্রাক্তন স্বামী জানিয়েছেন, দত্তক কন্যা বললেও রামরহিমের সঙ্গে সম্ভোগ লীলা করত হানিপ্রীত৷ এসব জেনে বিবাহ বিচ্ছেদ করে আত্মগোপনে চলে গিয়েছিলাম৷