নয়াদিল্লি: কাশ্মীরে ৩৭০ ধারা বিলোপের পর হরিয়াণার মুখ্যমন্ত্রীর ‘রসিকতায়’ নতুন করে শুরু হয়েছে বিতর্ক। মনোহর লাল খট্টর এক জনসভায় ভাষণ দিতে গিয়ে বলেন, এবার দলীয় কর্মীরাও সুন্দরী কাশ্মীরী মেয়েদের বিয়ে করতে পারবেন। এইরকম মন্তব্যের পর রীতিমত বিতর্ক শুরু হয়ে গেছে।

বিষয়টি চাপা দিতে তিনি তৎক্ষনাত উত্তর দেন, তিনি রসিকতা করেছেন মাত্র। কিন্তু ততক্ষণে বিরোধী দলগুলির ক্ষোভ, উত্তরপ্রদেশের বিজেপি বিধায়কের পর সেই একই বিষয় নিয়ে মুখ খুললেন হরিয়ানার মুখ্যমন্ত্রীও। মোদীর মন্ত্রীদের শিক্ষার বারংবার একই নমুনা উঠে আসায় বিরোধীরা ক্ষুব্ধ।

শুক্রবারের জনসভায় বক্তব্য রাখতে গিয়ে খট্টর বলেন, “ধনকারজি বলতেন, মেয়ের সংখ্যা ছেলের সংখ্যা বাড়লে অনুপাত আনতে বিহার থেকে বউমা আনব। জম্মু-কাশ্মীর থেকে ৩৭০ ধারা উঠে যাওয়ায় এবার সেখান থেকেও সুন্দরী বউমা আনা যাবে। যদিও পুরোটাই মজার ছলে বলা। যদি সেখানে নারী-পুরুষের অনুপাত সমান থাকে তবে সবদিক থেকেই ভালো।”