লন্ডন: এমনিতেই প্রিমিয়র লিগে ভালো জায়গায় নেই দল। মোরিনহোর চিন্তা কয়েকগুণ বাড়িয়ে এবার মাঠের বাইরে চলে গেলেন ফরোয়ার্ড লাইনে প্রধান ভরসা হ্যারি কেন। নতুন বছরের প্রথম দিনই নেমে এসেছিল খাঁড়াটা। সাউদাম্পটনের বিরুদ্ধে ০-১ হারের ম্যাচেই হ্যামস্ট্রিংয়ে চোট পেয়ে মাঠ ছাড়তে হয়েছিল টটেনহ্যাম অধিনায়ককে। আশঙ্কাটা তৈরি হয়েছিল তখনই। শুক্রবার নিজেদের অফিসিয়াল ওয়েবসাইটে স্পারস কর্তৃপক্ষ জানিয়ে দিল, বাঁ-পায়ের হ্যামস্ট্রিং ইনজুরির কারণে ইংরেজ তারকাকে মাঠের বাইরে থাকতে হতে পারে লম্বা সময়ের জন্য।

সূত্রের খবর, কেনের চোট যা গুরুতর তাতে প্রায় আট সপ্তাহ মাঠের বাইরে থাকতে হত পারে অধিনায়ককে। ক্লাব সূত্রে বিবৃতি প্রকাশ করার আগে কোচ জোসে মোরিনহোও দলের অধিনায়ককে নিয়ে আশঙ্কা প্রকাশ করেছিলেন সাংবাদিক সম্মেলনে। এমনকি আগামী বুধবার এফএ কাপের তৃতীয় রাউন্ডের ম্যাচে কেনকে ছাড়াই মাঠে নামার পরিকল্পনা নিয়ে নিয়েছিলেন। কঠিন সময়ে সোশ্যাল মিডিয়ায় অনুরাগীদের উদ্দেশ্যে বার্তা দিয়েছেন কেন নিজেও।

টুইটারে নিজের একটি ছবি পোস্ট করেছেন কেন। যেখানে গত ম্যাচে চোট পাওয়ার একটি মুহূর্তের ছবি শেয়ার করেছেন তিনি। ক্যাপশন হিসেবে কেন সেখানে লিখেছেন, ‘মাথা তোলো। কঠিন সময় দীর্ঘস্থায়ী হয় না।’ স্বাভাবিকভাবেই কেনের টুইট দেখে অনুরাগীদের বুঝতে অসুবিধে হওয়ার কথা নয় যে, চোটের কারণে কতটা হতাশ অধিনায়ক। ক্লাবের পক্ষ থেকে জানানো হয়েছে, ‘চিকিৎসা চলছে। কেনের চোটের প্রতি কড়া নজর রেখে চলেছে ক্লাব।’

এদিকে সাসপেনশন পর্ব কাটিয়ে রবিবার এফএ কাপের ম্যাচে দলে ফিরতে চলেছেন মোরিনহোর দলের কোরিয়ান ফরোয়ার্ড সন মিন। এছাড়া আপফ্রন্টে মোরিনহোর হাতে বাকি দুই বিকল্প হিসেবে রয়েছেন ডেলে আলি ও লুকাস মৌরা। তবে গত মরশুমের মত চলতি মরশুমেও অব্যাহত কেন ম্যাজিক। সব ধরনের প্রতিযোগীতা মিলিয়ে ২৫ ম্যাচে এখনও অবধি দলের হয়ে সর্বোচ্চ ১৭ গোল লেখা হয়ে গিয়েছে ইংরেজ অধিনায়কের নামের পাশে। সুতরাং কেনকে ছাড়া কতটা প্রস্তুত তাঁর দল। প্রশ্নের উত্তরে মোরিনহো জানিয়েছেন, ‘যারা দলে রয়েছে আমি এখন তাদের উপরেই ফোকাস করতে চাই।’

উল্লেখ্য, ২১ ম্যাচে ৩০ পয়েন্ট নিয়ে এই মুহুর্তে প্রিমিয়র লিগ টেবিলে ছয় নম্বরে স্পারসরা। আগামী মরশুমে চ্যাম্পিয়ন্স লিগ খেলার দৌড়ে চতুর্থস্থানে থাকা চেলসির থেকে ছয় পয়েন্ট পিছিয়ে মোরিনহোর দল।