শঙ্কর দাস, বালুরঘাট: হিন্দুর সৎকারে এগিয়ে এসে মানবিকতার নজির গড়লেন মোজাম আলী। জলে ডুবে মৃত ব্যক্তির সৎকারের পয়সা না থাকা অসহায় পরিবারের পাশে দাঁড়ান। শুধু পাশে দাঁড়ানোয় নয়। মৃতদেহ ময়নাতদন্তে নিয়ে যাওয়ার গাড়ি ভাড়া থেকে শুরু করে তার দাহকার্যের সমস্ত রকমের দায়িত্ব নিজের খরচে সামলান। এ ঘটনা ঘটেছে বংশীহারি ব্লকের ডিটল এলাকায়।

পেশায় মধু সংগ্রহকারী পঞ্চাশোর্ধ মোহনলাল বেদ গত বৃহস্পতিবার রাতে ছেলের বাড়িতে যাওয়ার পথে পা পিছলে পুকুরে পড়ে যান। অনেক খোঁজাখুঁজির পর শুক্রবার দুপুরের পর পুকুরের জলে তাঁর মৃতদেহ ভেসে উঠে। পুলিশ মৃতদেহ উদ্ধারের পর ময়নাতদন্তের ব্যবস্থা করলেও তা সৎকার করার আর্থিক সামর্থ ছিল না মৃতের পরিবারের।

এলাকাবাসিরাও এব্যাপারে কোনও রকম সাহায্যের হাত বাড়িয়ে না দেওয়ায় এগিয়ে আসেন মোজাম আলি। তিনি নিজেই উদ্যোগী হয়ে মোহনলাল বেদের হিন্দু রীতি অনুযায়ী সৎকার করেন। এমনকি একাজে সমস্ত খরচও নিজে থেকেই বহন করেছেন।

বংশীহারি থানার আইসি মনোজিৎ সরকার জানিয়েছেন মোহনলাল বেদ বাড়ি থেকে বেরিয়ে দুর্ঘটনাবশত পুকুরের জলে পড়ে যান। অনেক খোঁজাখুঁজির পর জল থেকে তাঁর মৃতদেহ উদ্ধার করা হয়। পেশায় মধুসংগ্রহকারী মৃতের পরিবারের অর্থনৈতিক অবস্থা এতটাই করুণ যে দেহ সৎকারের খচরের সামর্থ পর্যন্ত তাঁদের ছিল না। এমতাবস্থায় স্থানীয় মোজাম আলী নিজে থেকে এগিয়ে এসে সেই কাজ সম্পন্ন করে সত্যিই প্রশংসার কাজ করেছেন।

পপ্রশ্ন অনেক: চতুর্থ পর্ব

বর্ণ বৈষম্য নিয়ে যে প্রশ্ন, তার সমাধান কী শুধুই মাঝে মাঝে কিছু প্রতিবাদ