চণ্ডীগড়: আতঙ্কে ঘুম ছুটিয়েছে করোনা। করোনা আবহে নিত্যদিনই বাজারে আসছে নতুন-নতুন সংস্থার নামের মোড়কে ভরা স্যানিটাইজার। ছোট-বড় দোকানগুলিতে দেদার বিকোচ্ছে বোতল-বোতল স্যানিটাইজার। কিন্তু এরই মধ্যে একশ্রেণির অসাধু ব্যবসায়ী নিম্নমানের স্যানিটাইজার বোতলজাত করে বাজারে এনেছেন।

করোনা তাড়াতে নকল ওই স্যানিটাইজারের ব্যবহারে নানা চর্মরোগে আক্রান্ত হচ্ছেন সাধারণ মানুষ। নিম্নমানের কাঁচামাল দিয়ে তৈরি স্যানিটাইজার বিক্রি করার অভিযোগে ১১টি সংস্থার বিরুদ্ধে এফআইআর দায়ের করেছে হরিয়ানা সরকার। ওই সংস্থাগুলির লাইসেন্সও বাজেয়াপ্ত করা হয়েছে।

সম্প্রতি হরিয়ানার বিভিন্ন এলাকা থেকে নকল স্যানিটাইজার নিয়ে ভুরি-ভুরি অভিযোগ আসে। বিষয়টি জানতে পেরেই তৎপরতা নেয় রাজ্য সরকার। মোট ২৪৮টি স্যানিটাইজারের নমুনা সংগ্রহ করা হয়।

পরীক্ষা করে দেখা যায় ১৪টি সংস্থার তৈরি স্যানিটাইজারে নিম্নমানের কঁচামাল ব্যবহার করা হয়েছে। ওই তরল শরীরের সংস্পর্শে এলে নান রোগে আক্রান্ত হওয়ার আশঙ্কা রয়েছে।

ইতিমধ্যেই নিম্নমানের স্যানিটাইজার বিক্রির অভিযোগে ১১টি সংস্থার বিরুদ্ধে এফআইআর দায়ের করেছে হরিয়ানা সরকার। ওই সংস্থাগুলির লাইসেন্সও বাতিল করা হয়েছে। আগামিদিনেও ভুয়ো সংস্থার বিরুদ্ধে এই ধরনের নজরদারি চলবে বলে জানিয়েছেন রাজ্য প্রশাসনের কর্তারা।

পপ্রশ্ন অনেক: নবম পর্ব

Tree-bute: আমফানের তাণ্ডবের পর কলকাতা শহরে শতাধিক গাছ বাঁচাল যারা