মুম্বই: বৃহস্পতিবারই বাবা হয়েছেন৷ তাঁর স্ত্রী নাতাসা স্ট্যানকোভিচ এক পুত্র সন্তানের জন্ম দিয়েছেন৷ কিন্তু শুক্রবার হার্দিককে ভালো কথা শোনাতে পারলেন না ইরফান পাঠান৷ টিম ইন্ডিয়ার প্রাক্তন অল-রাউন্ডারের মতে, এই মুহূর্তে বিশ্বের এক নম্বর অল-রাউন্ডার বেন স্টোকস৷ তবে পাঠানের পছন্দের তালিকায় প্রথম দশে থাকবেন না হার্দিক৷

পাঠান বিশ্বাস করেন, স্টোকস এক হাতেই ম্যাচ জেতাতে পারেন৷ গত কয়েক বছরে দলের হয়ে ব্যাট এবং বল নিয়ে দুর্দান্ত পারফর্ম করে চলেছেন ইংল্যান্ড অল-রাউন্ডার৷ কিন্তু হার্দিক এখনও স্টোকসের মতে ম্যাচ-উইনার নন৷

সম্প্রতি পাঠান ভারতীয় দলে স্টোকসের মতো অল-রাউন্ডারদের অভাব সম্পর্কে টুইট করেছিলেন৷ ফ্যানেরা হার্দিক সম্পর্কে প্রতিক্রিয়া জানতে চেয়েছিলেন৷ ক্রিকেট ডটকমকে দেওয়া একটি ভিডিও সাক্ষাত্কারে পাঠান বলেন, ‘বেন স্টোকস ইংল্যান্ডকে ম্যাচ জিতিয়ে বিশ্বের এক নম্বর অল-রাউন্ডার হয়েছেন। আমি চাইছি টিম ইন্ডিয়ার এমন অল-রাউন্ডার যে ভারতের হয়ে ম্যাচ জেতাবে। যুবরাজ সিং একজন ম্যাচ-উইনার ছিল।’

হার্দিক পান্ডিয়াকে নিয়ে পাঠানের বক্তব্য, ‘দুর্ভাগ্যবশত, হার্দিক পান্ডিয়াকে কোনও ফরম্যাটেই সেরা দশে রাখতে পারব না। ওর মধ্যে যে প্রতিভা রয়েছে, তা নিয়ে কোনও সন্দেহ নেই। ও নিজের সামর্থ্যমত পারফর্ম করতে পরলে ভারতীয় দল অপ্রতিরোধ্য হয়ে উঠবে।’

এছাড়াও বর্তমান ভারতীয় দল সম্পর্কে পাঠান আরও বলেন, “আমাদের বিরাট কোহলি, রোহিত শর্মা, লোকেশ রাহুলের মত ক্রিকেটার রয়েছে। শামি, ইশান্ত, বুমরাহের মত দুরন্ত বোলার রয়েছে। অশ্বিন, জাদেজার মত স্পিনারও আছে। তবে এমন একজন যদি থাকত যে ব্যাট ও বল দুই ক্ষেত্রেই সাবলীল৷ অর্থাৎ একজন প্রকৃত অল-রাউন্ডার। আমি বলতে চাইছি, ভারতের আসলে একজন ম্যাচ উইনার অল-রাউন্ডারের প্রয়োজন।’

পাঠান নিজেও একজন অল-রাউন্ডার ছিলেন। তিনি তাই অল-রাউন্ডারের প্রয়োজনীয়তা উপলব্ধি করে জানিয়েছেন, ‘এই অল-রাউন্ডারের জন্যই ইংল্যান্ড আজ বিশ্ব চ্যাম্পিয়ন। ইংরেজদের ভালো ক্রিকেটার রয়েছে তবে স্টোকস ওদেরকে অন্য মাত্রায় পৌঁছে দিয়েছে। ভারতেও ১৯৮৩ সালের বিশ্বকাপ জয়ের কথা উঠলে কপিল পাজির কথা ওঠে। জিম্বাবোয়ের বিরুদ্ধে দুরন্ত ইনিংস না-খেললে আমরা বিশ্বকাপই জিততে পারতাম না।’

নিউজিল্যান্ডে জন্মগ্রহণকারী স্টোকস তাঁর ৬ বছরের কেরিয়ারে ইংল্যান্ডের হয়ে এখনও পর্যন্ত ৬৬ টেস্ট, ৯৫ ওয়ান ডে এবং ২৬ টি-২০ খেলেছেন। টেস্টে ৩৮.৪২ গড়ে ৪৪১৯ রান করেছেন৷ উইকেট নিয়েছেন ১৫৬টি৷ আর সাদা বলের ক্রিকেট তাঁর রেকর্ডও দুর্দান্ত৷ ৪০ বেশি গড়ে ২৬৮২ রান এবং ৭০টি উইকেট নিয়েছেন৷

অন্যদিকে, ২৬ বছর বয়সি পান্ডিয়া তাঁর ছোটো আন্তর্জাতিক কেরিয়ার ভারতের হয়ে এখনও পর্যন্ত ১১টি টেস্ট, ৫৪ ওয়ান ডে এবং ৪০টি টি-২০ ম্যাচ খেলেছেন।

পপ্রশ্ন অনেক: চতুর্থ পর্ব

বর্ণ বৈষম্য নিয়ে যে প্রশ্ন, তার সমাধান কী শুধুই মাঝে মাঝে কিছু প্রতিবাদ