ইসলামাবাদ: অস্ত্রোপচারের পর ফিটনেস সমস্যা কাটিয়ে উঠে আপাতত জাতীয় দলে ফিরতে মরিয়া ভারতীয় দলের ফ্ল্যামবয়েন্ট অল-রাউন্ডার হার্দিক পান্ডিয়া। কিন্তু জাতীয় দলে ফের নিজেকে প্রমাণের লক্ষ্যে খুব বেশি পরিশ্রম করছেন না পান্ডিয়া। এমনটাই মনে করেন প্রাক্তন পাক তারকা অল-রাউন্ডার আব্দুল রজ্জাক। শুধু তাই নয়, হার্দিক কোনওভাবেই যে কপিল দেব কিংবা ইমরানের মতো অল-রাউন্ডারের সমগোত্রীয় নয়। সেটাও স্পষ্ট জানিয়ে দিয়েছেন রজ্জাক।

তাঁর সময়ের অন্যতম সেরা অল-রাউন্ডার রজ্জাক পিটিআই’কে দেওয়া এক সাক্ষাৎকারে জানিয়েছেন, ‘পান্ডিয়াকে মানসিক এবং শারীরীকভাবে আরও বেশি করে প্রস্তুতি নেওয়া উচিৎ।’ এখানেই শেষ নয়। পান্ডিয়ার সঙ্গে বিশ্বকাপ জয়ী ভারত অধিনায়ক কপিল দেব এবং পাকিস্তান অধিনায়ক ইমরান খানের সঙ্গে পান্ডিয়ার তুলনা প্রসঙ্গে রজ্জাকের সাফ কথা, ‘পান্ডিয়া নিঃসন্দেহে ভালো অল-রাউন্ডার। কিন্তু কপিল দেব ও ইমরান খান সর্বকালের সেরা দুই অল-রাউন্ডার। হার্দিক কোনওভাবেই তাঁদের কাছাকাছি নেই।’

কেবল হার্দিক নয়। পিটিআই’কে দেওয়া ওই সাক্ষাৎকারে ভারতের প্রতিশ্রুতিমান পেসার জসপ্রীত বুমরাহকে নিয়েও নানা মন্তব্য করেন রজ্জাক। দেশের হয়ে ৪৬টি টেস্ট, ২৬৫টি ওয়ান-ডে খেলা রজ্জাক বুমরাহকে ‘বেবি বোলার’ হিসেবে সম্বোধন করেছেন। প্রাক্তন পাক অল-রাউন্ডারের কথায়, ‘আমার সঙ্গে বুমরাহর কোনও ব্যক্তিগত সংঘাত নেই। কিন্তু আমাদের সময়ে গ্লেন ম্যাকগ্রা, ওয়াসিম আক্রাম, কার্টলে অ্যামব্রোস, শোয়েব আখতারের সঙ্গে তুলনায় গেলে ওকে অনেক কঠিন লড়াইয়ের সম্মুখীন হতে হত।’

তবে বুমরাহর প্রশংসা করে রজ্জাক বলছেন, ‘বুমরাহ একজন বিশ্বমানের বোলার হওয়ার পথে এগোচ্ছে।’ কিন্তু রজ্জাক বলেছেন, তাঁদের সময়কার বোলারদের মধ্যে ক্যালিবার অনেক বেশি ছিল। খুব বেশি মানুষ আমার যুক্তি খন্ডন করার রাস্তায় হাঁটবেন বলে মনে হয় না। এছাড়াও বিভিন্ন বিষয়ে বর্তমান সময়ের ক্রিকেটের সঙ্গে তৎকালীন ক্রিকেটের তুলনা করে প্রাক্তন পাক অল-রাউন্ডারের মত, ক্রিকেটের মান অনেকটাই কমেছে।

একইসঙ্গে ভারত-পাকিস্তান দ্বৈরথ প্রসঙ্গে রজ্জাক মনে করেন, বিশ্বকাপে ভারতীয় দল পাকিস্তানের উপর কর্তৃত্ব আগামীদিনেও বজায় রাখবে। তাঁর কথায় ৯০ দশকে পাকিস্তান ভারতের থেকে শক্তিশালী প্রতিপন্ন হলেও গত দশকে পাকিস্তানের থেকে অনেক এগিয়ে ভারত।

পচামড়াজাত পণ্যের ফ্যাশনের দুনিয়ায় উজ্জ্বল তাঁর নাম, মুখোমুখি দশভূজা তাসলিমা মিজি।