মেলবোর্ন: মহেন্দ্র সিং ধোনি, আগে ছিলেন ফিনিশার৷ কিন্তু এখন হলেন ‘মেন ইন ব্লু’-র অ্যাঙ্কার ও ফিনিশার৷

অস্ট্রেলিয়ায় বিরাটবাহিনীর ওয়ান ডে সিরিজ জয়ের অন্যতম কারিগর ধোনি৷ তিন ম্যাচেই হাফ-সেঞ্চুরি করে সিরিজের সেরা হলেন মাহি৷ শুক্রবার মেলবোর্নে তাঁর ব্যাটে অপরাজিত ৮৭ রানে ভর করে তিন ম্যাচের সিরিজ ২-১ জিতে নেয় ভারত৷ সেই সঙ্গে ইতিহাস গড়ে টিম কোহলি৷ অস্ট্রেলিয়ার মাটিতে প্রথমবার দ্বি-পাক্ষিক ওয়ান ডে সিরিজ জিতল টিম ইন্ডিয়া৷ এর আগে অজিভূমে কোনও দিন দ্বি-পাক্ষিক ওয়ান ডে সিরিজ জেতেনি ভারত৷

টেস্ট সিরিজের পর ওয়ান ডে সিরিজ জয়৷ অস্ট্রেলিয়ার মাটিতে ডাবল ইতিহাস বিরাটদের৷ টেস্ট না-খেলায় বিরাটদের প্রথম ইতিহাসে সাক্ষী থাকা হয়নি ধোনির৷ কিন্তু শুক্রবার মেলবোর্নে বিরাটবিহানী যে ইতিহাস রচনা করল, তার কাণ্ডারী মাহি৷ সিডনি, অ্যাডিলেড ওভাল ও মেলবোর্নে তিন ম্যাচেই হাফ-সেঞ্চুরি এল ধোনির ব্যাট থেকে৷

প্রথম দু’টি ম্যাচে পাঁচ নম্বরে ব্যাটিং করলেও এদিন চার নম্বরে ধোনিকে নামায় ভারতীয় থিঙ্কট্যাঙ্ক৷ দুরন্ত ব্যাটিং করে টিম ম্যানেজমেন্টের আস্থার মর্যাদা দিলেন প্রাক্তন ভারত অধিনায়ক৷ এমসিজি-র স্লো পিচে পরিস্থিতি অনুাযায়ী ব্যাটিং করে দলকে জিতিয়ে মাঠ ছাড়েন মাহি৷ তবে দলের প্রয়োজনে যে কোনও পজিশনে ব্যাট হাতে নামতে রাজি ভারতের বিশ্বকাপ জয়ী অধিনায়ক৷

কোনও পজিশনে ব্যাট করতে চান, এই প্রশ্নের উত্তরে ধোনি বলেন, ‘আমি কত নম্বরে ব্যাট করতে চাই সেটা গুরুত্বপূর্ণ নয়৷ দলের প্রয়োজনে যে কোনও পজিশনে ব্যাট করতে আমি প্রস্তুত৷ তবে ১৪ বছর খেলার পর বলতে পারি না, আমি ছ’ নম্বর অথবা চার নম্বরে ব্যাটিং করতে চাই৷’

বিরাট কোহলির উইকেট ছুঁড়ে দিয়ে এলেও ফের ‘অ্যাঙ্কার’ ধোনি প্রমাণ করলে ‘মেন ইন ব্লু’ জার্সিতে কেনও এখনও তাঁকে প্রয়োজন৷ সাড়ে পাঁচ ম্যাচ পর ইংল্যান্ডের মাটিতে বিশ্বকাপে তিনিই বিরাটের দলের ভরসা তা বুঝিয়ে দিলেন মাহি৷ অধিনায় হিসেবে দেশকে দিয়েছে দু’টি বিশ্বকাপ এবং একটি চ্যাম্পিয়ন্স ট্রফি৷ কিন্তু আসন্ন বিশ্বকাপে বিরাটের দল বড় সম্পদ হতে চলেছেন ধোনি৷ সিরিজের সেরা তা প্রমাণ করে দিলেন মাহি৷

সেই সঙ্গে এদিন অস্ট্রেলিয়ার মাটিতে ওয়ান ডে ক্রিকেটে হাজার রানের মাইলস্টোন টপকালেন ধোনি৷ সচিন তেন্ডুলকর, রোহিত শর্মা ও বিরাট কোহলির পর চতুর্থ ভারতীয় ব্যাটসম্যান হিসেবে ১০০০ রানের গণ্ডি টপকালেন মাহি৷ মেলবোর্নে এদিন প্রথম বলেই ধোনির ক্যাচ ফেলেন ম্যাক্সওয়েল৷ সেই সঙ্গে ম্যাচ ফস্কাল অস্ট্রেলিয়া৷ পরে ধোনিকে রান-আউট করার সুযোগ হাতছাড়া করেন অ্যাডাম জাম্পা৷ ম্যাচে দু’বার জীবন পাওয়ায় মাহিকে আর ফিরে তাকাতে হয়নি৷ তৃতীয় উইকেটে কোহলির সঙ্গে ৫৪ রানের পার্টনারশিপের এবং চতুর্থ উইকেটে কেদার যাদবের সঙ্গে ১২১ রানের অবিভক্ত পার্টনারশিপে ভারতকে ম্যাচ ও সিরিজ জিতিয়ে মাঠ ছাড়েন মাহি৷

রান তাড়া করা প্রসঙ্গে ধোনি বলেন, ‘পিচ স্লো ছিল৷ এখানে হিট নেওয়া সহজ ছিল না৷ শেষ পর্যন্ত ক্রিজে থাকাটাই দরকার ছিল৷ বোলাররা ওদের কাজ করেছে৷ কেদার দারুণ ব্যাটিং করেছে৷ ওর বাউন্ডারি গুলো দরকার ছিল৷’ প্রথম দু’টি ম্যাচে সুযোগ না-পেলেও এদিন সুযোগ পেয়েই তা কাজে লাগান কেদার৷ ৫৭ বলে ৬১ রানের ম্যাচ জেতানো ইনিংস খেলেন তিনি৷ অস্ট্রেলিয়ায় সিরিজ জিতে এবার নিউজিল্যান্ড উড়ে যায়ে টিম ইন্ডিয়া৷ কিউয়িদের বিরুদ্ধে পাঁচ ওয়ান ডে সিরিজ ছাড়াও তিন ম্যাচের টি-২০ সিরিজ খেলবে বিরাটবাহিনী৷ ২৩ জানুয়ারি, নেপিয়ারে সিরিজের প্রথম ওয়ান ডে৷