লন্ডন: ২২ গজের বিশ্বযুদ্ধের মধ্যেই অল ইংল্যান্ড ক্লাবে চলছে টেনিসের গ্ল্যামারাস টুর্নামেন্ট৷ রবিবার লর্ডসে ক্রিকেট বিশ্বকাপ ফাইনালের আগে উইম্বলডনের সেন্টার কোর্টে ঐতিহ্যের এই গ্র্যান্ড স্ল্যাম জয়ের লড়াইয়ে মুখোমুখি কিংবদন্তি দুই টেনিস তারকা রজার ফেডেরার ও নোভাক জকোভিচ৷ শনিবার অবশ্য উইম্বলডন পেয়েছে নতুন রানি৷ মহিলা সিঙ্গলসের ফাইনালে ২৩টি গ্র্যান্ড স্ল্যামের মালকিন সেরেনা উইলিয়ামসকে হারিয়ে প্রথমবার উইম্বলডন জিতেন নেন রোমানিয়ার সিমোনা হ্যাপেল৷

মাত্র ৫৬ মিনিটে সেরেনার লড়াই থামিয়ে প্রথমবার উইম্বলডন খেতাব জিতে নেন হ্যালের৷ কেরিয়ারে এটি তাঁর দ্বিতীয় গ্র্যান্ড স্ল্যাম৷ তবে প্রথম রোমানিয়ান হিসেবে অল ইংল্যান্ড ক্লাবে চ্যাম্পিয়ন হলেন হ্যালেপ৷ ২৩টি গ্র্যান্ড স্ল্যামের মালকিনকে স্ট্রেট সেটে (৬-২, ৬-২) হারিয়ে উইম্বলডন জিতে নেয় তিনি৷ হ্যালেপের কাছে হেরে স্বপ্নভঙ্গ হয় সেরেনার৷ উইম্বলডন খেতাব জিতলে ২৪টি গ্র্যান্ড স্ল্যাম জিতে মার্গারেট কোর্টকে ছুঁয়ে ফেলতেন তিনি৷ অর্থাৎ রেকর্ড গ্র্যান্ড স্ল্যাম জিততে মরশুমের শেষ গ্র্যান্ড স্ল্যাম ইউএস ওপেন পর্যন্ত অপেক্ষা করতে হবে ৩৭ বছরের মার্কিনিকে৷

প্রথমবার উইম্বলডন জয়ের স্বাদ পেয়ে হ্যালেপ জানান, ‘প্রথম দিকে নার্ভাস ছিলাম৷ ম্যাচের আগে আমার পেটের অবস্থা ভালো ছিল না৷ কিন্তু আমার আবেগের কোনও জায়গা ছিল না৷ কোর্টে নেমে আমার সেরাটা দেওয়ার চেষ্টা করেছি৷’ এর আগে তিনি এত ভালো কোনও দিন খেলেননি বলেও জানান ২৭ বছরের রোমানিয়ান তারকা৷ গত বছর রোলাঁ গারো চ্যাম্পিয়ন হয়েছিলেন হ্যালেপ৷

মায়ের স্বপ্ন সত্যি করতে পেরে অত্যন্ত খুশি হ্যালেপ৷ তিনি জানান, ‘আমার যখন ১০ বছর বয়স, তখন আমার মা উইম্বলডন জয়ের স্বপ্ন দেখেছিলেন৷ আর আজ মা গ্যালারিতে বসে আমার জয় দেখল৷ ঘাসের কোর্টে আমার খেলা আগের থেকে ভালো হয়েছে৷ বছরের শুরু থেকে আমি এর উপর জোর দিই৷’ সাতবারের উইম্বলডন চ্যাম্পিয়নদের বিরুদ্ধে কোর্টে নেমে স্বভাবতই নার্ভাস ছিলেন হ্যালেপ৷ গত বছর উইম্বলডন জিতেছিলেন সেরেনা৷