স্টাফ রিপোর্টার, হলদিয়া:  হলদিয়ার কেন্দ্রীয় সরকারি ইঞ্জিনিয়ারিং কলেজে র্যা গিংয়ের ঘটনায় দোষীদের দৃষ্টান্তমূলক শাস্তির দাবিতে  বিক্ষোভ দেখালেন পড়ুয়ারা।
সোমবার সকাল থেকেই প্রথম বর্ষের পড়ুয়ারা গেট আটকে বিক্ষোভ দেখাতে শুরু করেন। তাঁদের দাবি, অবিলম্বে র্যায়গিং বন্ধ করতে হবে। এই ঘটনায় যারা দোষী তাদের দৃষ্টান্তমূলক শাস্তি দিতে হবে। পড়ুয়াদের অভিযোগ, এর আগেও, এই কলেজে র্যাটগিংয়ের অভিযোগ উঠেছে। কিন্তু কলেজ কর্তৃপক্ষ কড়া পদক্ষেপ না নেওয়ায়, বারেবারেই একই ঘটনা ঘটছে।
হলদিয়ার সেন্ট্রাল ইনস্টিটিউট অফ প্লাস্টিক ইঞ্জিনিয়ারিং অ্যান্ড টেকনোলজিতে র্যা গিংয়ের নালিশ জানানোয় ইঞ্জিনিয়ারিংয়ের ছাত্রকে ভাড়াটে গুন্ডা দিয়ে অপহরণ করে খুনের চেষ্টার অভিযোগ ওঠে। গ্রেফতার হয় প্রতিষ্ঠানেরই পাঁচ পড়ুয়া। এখনও ফেরার তিন অভিযুক্ত।
এই ঘটনার প্রসঙ্গে এদিন বিধানসভায় শিক্ষামন্ত্রী বলেন, রিপোর্ট এখনও হাতে পাইনি৷ আজকের মধ্যেই রিপোর্ট পাওয়ার কথা৷ পেলে কেন্দ্রকে পাঠাব৷
 
 

লাল-নীল-গেরুয়া...! 'রঙ' ছাড়া সংবাদ খুঁজে পাওয়া কঠিন। কোন খবরটা 'খাচ্ছে'? সেটাই কি শেষ কথা? নাকি আসল সত্যিটার নাম 'সংবাদ'! 'ব্রেকিং' আর প্রাইম টাইমের পিছনে দৌড়তে গিয়ে দেওয়ালে পিঠ ঠেকেছে সত্যিকারের সাংবাদিকতার। অর্থ আর চোখ রাঙানিতে হাত বাঁধা সাংবাদিকদের। কিন্তু, গণতন্ত্রের চতুর্থ স্তম্ভে 'রঙ' লাগানোয় বিশ্বাসী নই আমরা। আর মৃত্যুশয্যা থেকে ফিরিয়ে আনতে পারেন আপনারাই। সোশ্যালের ওয়াল জুড়ে বিনামূল্যে পাওয়া খবরে 'ফেক' তকমা জুড়ে যাচ্ছে না তো? আসলে পৃথিবীতে কোনও কিছুই 'ফ্রি' নয়। তাই, আপনার দেওয়া একটি টাকাও অক্সিজেন জোগাতে পারে। স্বতন্ত্র সাংবাদিকতার স্বার্থে আপনার স্বল্প অনুদানও মূল্যবান। পাশে থাকুন।.

জীবে প্রেম কি আদৌ থাকছে? কথা বলবেন বন্যপ্রাণ বিশেষজ্ঞ অর্ক সরকার I।