স্টাফ রিপোর্টার, হলদিয়া: শুক্রবার দুপুরে হলদিয়া মৎস্য দফতরের উদ্যোগে ১০০ দিনের প্রকল্পে পুকুর খনন করা মাছ চাষিদের বিনামূল্যে রুই, কাতলা, মৃগেলের চারা পোনা বিতরণ করা হল৷

মৎস্য দফতরের তরফে জানানো হয়েছে, মাছ চাষিদের স্বনির্ভর করে তুলতেই সরকারের এই উদ্যোগ৷ এদিন ৫৭ জন চাষির হাতে কয়েক হাজার মাছের চারা পোনা তুলে দেওয়া হয়৷

শুক্রবার দুপুরে পূর্ব মেদিনীপুর জেলার হলদিয়া ব্লকে মৎস্য দফতরের উদ্যোগে একটি অনুষ্ঠানের মধ্য দিয়ে উপভোক্তাদের বিভিন্ন প্রজাতির এই দেশি মাছের চারা পোনা বিতরন করা হল। হলদিয়া ব্লকের মৎস্য সম্প্রসারন আধিকারিক সুমন কুমার সাহু জানান, ‘‘পশ্চিমবঙ্গ সরকারের উদ্যোগ যেসব উপভোক্তারা ১০০ দিনের কাজের মধ্য দিয়ে পুকুর খনন করেছে, তাঁদের চিহ্নিত করে মোট ৫৭ জন উপভোক্তাদের হাতে এই দেশী চারা মাছের পোনা বিতরন করা হল৷ স্বনির্ভর করে তুলতেই এই উদ্যোগ৷’’

এদিনে মাছের পোনা বিতরন অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন হলদিয়া পঞ্চায়েত সমিতির সভাপতি খুকুমনি সাহু , হলদিয়ার বিডিও রাজর্ষি নাথ, মৎস্য সম্প্রসারণ আধিকারিক সুমন কুমার সাহু , কৃষি কর্মাধ্যক্ষ দেবপ্রসাদ দাস প্রমুখ। মাছের চারা পোনা পেয়ে খুশি মাছ চাষিরা। কারন রুই, কাতলা, মৃগেল মাছ নিজেদের পুকুরে চাষ আবাদ করার পরে বাজারে বিক্রি করে নিজেরা অনেকটা স্বনির্ভর হতে পারবেন।

লাল-নীল-গেরুয়া...! 'রঙ' ছাড়া সংবাদ খুঁজে পাওয়া কঠিন। কোন খবরটা 'খাচ্ছে'? সেটাই কি শেষ কথা? নাকি আসল সত্যিটার নাম 'সংবাদ'! 'ব্রেকিং' আর প্রাইম টাইমের পিছনে দৌড়তে গিয়ে দেওয়ালে পিঠ ঠেকেছে সত্যিকারের সাংবাদিকতার। অর্থ আর চোখ রাঙানিতে হাত বাঁধা সাংবাদিকদের। কিন্তু, গণতন্ত্রের চতুর্থ স্তম্ভে 'রঙ' লাগানোয় বিশ্বাসী নই আমরা। আর মৃত্যুশয্যা থেকে ফিরিয়ে আনতে পারেন আপনারাই। সোশ্যালের ওয়াল জুড়ে বিনামূল্যে পাওয়া খবরে 'ফেক' তকমা জুড়ে যাচ্ছে না তো? আসলে পৃথিবীতে কোনও কিছুই 'ফ্রি' নয়। তাই, আপনার দেওয়া একটি টাকাও অক্সিজেন জোগাতে পারে। স্বতন্ত্র সাংবাদিকতার স্বার্থে আপনার স্বল্প অনুদানও মূল্যবান। পাশে থাকুন।.