জীবনে চলার পথে কখন কী দরকার পড়ে তা আমরা কেউ জানি না। তাই নিজেকে সবসময় তৈরি রাখা উচিত সেই পরিস্থিতিগুলির মুখোমুখি হওয়ার জন্যে। হতে পারে সেটা কোনো সিরিয়াস ঘটনা নয় কিন্তু আপনার কাছে সেগুলিকে ডিল করার মতো হাতিয়ার থাকা উচিত। এই যেমন ধরুন অফিসে রয়েছেন আপনি। সেই সময়ে হঠাৎ করে শুনতে পেলেন যে অফিস শেষের পর পার্টি রয়েছে। যেখানে সমস্ত কলিগরা থাকবেন পার্টিতে সেখানে আপনি অসামাজিকের মতো সেই পার্টি ছেড়ে চলে তো যেতে পারেন না। তাই আপনাকে সেক্ষেত্রে নিজের সহায় নিজেকেই হতে হবে। এক্ষেত্রে পোশাকে আপনি কোনো বৈচিত্র আনতে পারবেন না। তবে নিজের সাজে একটু বৈচিত্র আনতে চুলের ফাঙ্কি লুকের দিকে নজর দিতে পারেন যাতে পার্টিতে সকলেরই নজর থাকে আপনার উপরেই।

১. চুলের সামনের দিকে অনেকগুলো ছোট ছোট বেনুনি করে নিয়ে সেখানে ছোট্ট অনেক রঙিন ক্লিপ লাগাতে পারেন। নানা রঙের, নানা ডিজ়াইনের বড়ো ও ছোট ক্লিপ লাগাতে পারেন চুলে। সেক্ষেত্রে বড় ক্লিপগুলো দিয়ে বাড়তি চুলগুলো আটকে মাথার পেছনের দিকে বেঁধে দিন আপনার খোঁপায় বা পনিটেলে। এবার বাড়তি ছোট ক্লিপগুলোকে সামনের বেনুনিগুলিতে রঙ কন্ট্রাস্ট করে লাগিয়ে দিন।

 

২. স্কার্ফ: যে স্কার্ফটি আপনি গলায় পেঁচিয়ে রেখেছেন সেটিকে আপনি মাথায় বেঁধে ফেলুন। স্কার্ফটি খুব বড় হলে দুটো ভাঁজ করে মাথায় ব্যান্ডের মতো করে লাগান। আবার হেয়ার স্কার্ফও পাওয়া যাচ্ছে আজকাল। আজকাল আবার “বন্দনা” নামক এমন স্কার্ফ পাওয়া যায় রেডিমেড। বাজারে গিয়ে কেনার সময় না থাকলে একসাথে অনেক সম্ভার দেখতে নীচের লিংকে ক্লিক করুন এখুনি।

৩. হেয়ারব্যান্ড: ব্যাগে কিছু রঙিন ও কিছু এক রঙের হেডব্যান্ড রাখুন। পোশাকের সঙ্গে মানানসইভাবে সেগুলি পরে নিন মাথায়। এখানে আপনি সামনের কিছুটা চুল ছেড়ে বাকিটা আটকে দিন হেয়ারব্যান্ডে। এরপর যে অংশ খালি সেটাকে বেনুনি করে হেয়ারব্যান্ডের সামনে থেকে ঘুরিয়ে মাথার পেছনে ছেড়ে রাখা বা বেঁধে রাখা চুলের সঙ্গে পেঁচিয়ে ক্লিপ আটকে দিন।

লাল-নীল-গেরুয়া...! 'রঙ' ছাড়া সংবাদ খুঁজে পাওয়া কঠিন। কোন খবরটা 'খাচ্ছে'? সেটাই কি শেষ কথা? নাকি আসল সত্যিটার নাম 'সংবাদ'! 'ব্রেকিং' আর প্রাইম টাইমের পিছনে দৌড়তে গিয়ে দেওয়ালে পিঠ ঠেকেছে সত্যিকারের সাংবাদিকতার। অর্থ আর চোখ রাঙানিতে হাত বাঁধা সাংবাদিকদের। কিন্তু, গণতন্ত্রের চতুর্থ স্তম্ভে 'রঙ' লাগানোয় বিশ্বাসী নই আমরা। আর মৃত্যুশয্যা থেকে ফিরিয়ে আনতে পারেন আপনারাই। সোশ্যালের ওয়াল জুড়ে বিনামূল্যে পাওয়া খবরে 'ফেক' তকমা জুড়ে যাচ্ছে না তো? আসলে পৃথিবীতে কোনও কিছুই 'ফ্রি' নয়। তাই, আপনার দেওয়া একটি টাকাও অক্সিজেন জোগাতে পারে। স্বতন্ত্র সাংবাদিকতার স্বার্থে আপনার স্বল্প অনুদানও মূল্যবান। পাশে থাকুন।.