লন্ডন: টেস্ট স্কোয়াডে না থাকলেও বিলেতে গিয়ে ইংল্যান্ড এবং ওয়েলস ক্রিকেট বোর্ড নির্দেশিত জৈব নিরাপত্তা বলয় ভেঙে সমালোচিত হলেন মহম্মদ হাফিজ। বলয়ের বাইরে গিয়ে অচেনা কোনও মানুষের সঙ্গে ক্রিকেটাররা যাতে সাক্ষাৎ না করেন সে বিষয়ে গাইডলাইনে রয়েছে কড়া নির্দেশ। বুধবার সেই ভুলটাই করে বসলেন পাকিস্তানের প্রাক্তন অধিনায়ক।

স্থানীয় গলফ কোর্সে গিয়ে একজন বয়স্কা ভদ্রমহিলার সঙ্গে ছবি তুলেছেন মহম্মদ হাফিজ। আর ইন্টারনেটে সেই ছবি ছড়িয়ে পড়তেই নেটিজেনরা চেপে ধরেন হাফিজকে। কড়া নির্দেশ সত্ত্বেও জৈব নিরাপত্তা বলয় ভেঙে নিয়ম লঙ্ঘন করায় সোশ্যাল মিডিয়ায় প্রাথমিকভাবে ব্যাপক নিন্দার মুখে পড়েন পাকিস্তানের সীমিত ওভারের এই ক্রিকেটার। গলফ কোর্সে ওই ভদ্রমহিলার সঙ্গে নিজেই সোশ্যাল মিডিয়ায় ছবি পস্ট করে বিপদ ডেকে আনেন প্রাক্তন অধিনায়ক। পাকিস্তান ক্রিকেট দলের ঘনিষ্ঠ এক সূত্র জানিয়েছে, হাফিজের প্রোটোকল ভাঙার বিষয়টি মেনে নিয়েছে পিসিবি। একইসঙ্গে নিষেধাজ্ঞা সত্ত্বেও এমন কাজ করায় প্রাক্তন অধিনায়কের উপর বেজায় ক্ষুব্ধ তারা।

ঘটনার পর তড়িঘড়ি হাফিজকে পাঁচদিনের সেলফ-আইসোলেশনে যাওয়ার পরামর্শ দেওয়া হয়েছে। জানা গিয়েছে পাঁচদিন পর পুনরায় কোভিড টেস্ট হবে হাফিজের। টানা দু’টি পরীক্ষায় রিপোর্ট নেগেটিভ এলে তবেই পুনরায় দলের সঙ্গে যোগ দিতে পারবেন এই অল-রাউন্ডার। উল্লেখ্য, ইংল্যান্ড সফরে আসার আগে যে ১০ জন পাক ক্রিকেটার করোনা আক্রান্ত হয়েছিলেন তাঁদের মধ্যে হাফিজ একজন। পাকিস্তান ক্রিকেট বোর্ড কর্তৃক কোভিড পরীক্ষায় তাঁর রিপোর্ট পজিটিভ আসার পর ব্যক্তিগত উদ্যোগে ফের কোভিড পরীক্ষা করিয়েছিলেন হাফিজ। সেই রিপোর্ট নেগেটিভ আসায় বিড়ম্বনায় পড়েছিল পাক ক্রিকেট বোর্ড।

এদিন জৈব নিরাপত্তা বলয় ভেঙে ফের একবার দলকে বেকায়দায় ফেললেন হাফিজ। যদিও এরপর পিসিবি কর্তৃক আরও দু’টি কোভিড পরীক্ষায় উত্তীর্ণ হয়ে তবেই ইংল্যান্ডগামী বিমান ধরার অনুমতি মেলে তাঁর। তবে এখন দেখার সেলফ-আইসোলেশন ছাড়া জৈব নিরাপত্তা বলয় ভাঙার অপরাধে আর কোনও শাস্তি হয় কীনা তাঁর। ইসিবি বায়ো-সিকিওরিটি প্রোটোকলকে যে খুব কড়া হাতে সামলাচ্ছে তা জোফ্রা আর্চারের ঘটনাতেই স্পষ্ট। গত ওয়েস্ট ইন্ডিজ সফরে বায়ো-সিকিওরিটি প্রোটোকল ভেঙে ইংরেজ পেসার ব্রিটনে নিজের ফ্ল্যাটে গিয়ে শাস্তি পেয়েছিলেন। দ্বিতীয় টেস্টে বাদ পড়ার পাশাপাশি তাঁকে আআরথিক জরিমানা করেছিল ইসিবি।

প্রশ্ন অনেক: দশম পর্ব

রবীন্দ্রনাথ শুধু বিশ্বকবিই শুধু নন, ছিলেন সমাজ সংস্কারকও