চণ্ডীগড়: স্বঘোষিত ‘গডম্যান’ গুরমিত রাম রহিম সিং দোষী সব্যস্ত হওয়ার পরই উত্তাল হয়ে উঠেছিল হরিয়ানা এবং চণ্ডীগড়৷ দুই ভক্তকে ধর্ষণের অভিযোগে অভিযুক্ত হওয়ার পরই বিক্ষোভে ফেটে পরে তার অনুগামীরা৷ কিন্তু ‘রাম’ভক্তদের এই তাণ্ডবের পিছনেও রয়েছে একটি রহস্য৷ একটি ‘লাল ব্যাগ’কে ঘিরে যাবতীয় রহস্যের সূত্রপাত৷ এই লাল ব্যাগটিই নাকি অশান্তি সৃষ্টির জন্য সিগনাল হিসেবে ব্যবহৃত হত৷ এমনটাই দাবি হরিয়ানা পুলিশের৷

আরও পড়ুন: বাবা-গুরুদেবদের সম্পত্তি হার মানাতে পারে শিল্পপতিদের

রায় ঘোষণার দিন রাম রহিমকে হেলিকপ্টারে করে নিয়ে আসা হয়েছিল আদালতে৷ সঙ্গে ছিল তার ‘পালিত কন্যা’ হানিপ্রীত সিং৷ সেই সময় একটি বিষয় কিন্তু অনেকেরই চোখ এড়িয়ে গিয়েছে৷ সেই সময় তাদের সঙ্গে ছিল একটি লাল রংয়ের ব্যাগ৷ সেই ব্যাগটিই আবার চেয়ে বসলেন ‘গডম্যান’৷ কিন্তু এই ব্যাগটি কেন চাইলেন আবার ‘বাবা’?সেটি নিয়ে উঠছে প্রশ্ন৷ পুলিশ সন্দেহ করছে, এই ব্যাগটি ‘রাম’ ভক্তদের মধ্যে উত্তেজনার উদ্রেক করছে৷ সন্দেহটি কিন্তু একেবারেই ভিত্তিহীন নয়৷ শুক্রবার রায় ঘোষণার পর যখন রাম রহিমের কাছ থেকে ব্যাগটি নিয়ে আসা হয়, ঠিক তারপরই আদালত চত্বর থেকে মাত্র ২ থেকে ৩কিমি দূরে টিয়ার গ্যাসের শেল ফাটানোর আওয়াজ পাওয়া যায়৷ এরপরই লাল ব্যাগটিকে ঘিরে পুলিশের মনে সন্দেহ দানা বাঁধে৷

আরও পড়ুন: ধর্ষক বাবা রাম রহিমকে ১০ বছরের জেলের সাজা দিল কোর্ট

যদিও রাম রহিম এই ঘটনাটিকে সম্পূর্ণভাবে অস্বীকার করেন৷ তিনি স্পষ্ট জানিয়ে দিয়েছেন, এটিতে তার শুধুমাত্র জামাকাপড় ছাড়া আর কিছুই নেই৷ এই বিষয়টি সম্পর্কে হানিপ্রীতও অনেক কিছুই জানেন৷ সেটিও সন্দেহ করছে হরিয়ানা পুলিশ৷ কিন্তু এই লাল ব্যাগটিকে ঘিরে কি রহস্য রয়েছে, সেটি নিয়ে ধোঁয়াশা রয়েছেই৷

১৫ বছরের আগে দুই ভক্তকে ধর্ষণের অভিযোগ ওঠে ডেরা সচ্চ সৌদা ধর্মীয় সংগঠনের প্রধান গুরমিত রাম রহিম ইনসান সিংয়ের বিরুদ্ধে৷ গত শুক্রবার তাঁকে দোষী সাব্যস্ত করে হরিয়ানার সিবিআইয়ের বিশেষ আদালত৷ তারপরেই রণক্ষেত্র হয়ে ওঠে হরিয়ানার সিরসা, পাঁচকুলা সহ পাঞ্জাব ও দিল্লির একাধিক এলাকা৷৩৩ জন ডেরা ভক্তের মৃত্যু হয়৷ গত সোমবার যেন সেই ঘটনার পুনরাবৃত্তি না হয় তার জন্য আগে থেকেই কড়া সতর্ক প্রশাসন৷