বুরকিনা ফাসো: ফের বন্দুকবাজের হামলা। চার্চে ভয়াবহ হামলায় ২৪ জনের মৃত্যু হয়েছে। রবিবার বুরকিনা ফাসো-র একটি চার্চে এই ঘটনা ঘটেছে। এছাড়াও তিনজনকে অপহরণ করা হয়েছে। পশ্চিম আফ্রিকার এই দেশে আগেও এই ধরনের হামলা হয়েছে বেশ কয়েকবার।

ইয়াঘা প্রদেশের প্যানসি টাউনে এই হামলা হয়েছে বলে জানিয়েছেন সেখানকার মেয়র শিনহারি ওসানগোলা ব্রিগেডি। আহতদের বেশিরভাগই ওই সময় প্রার্থনা করতে এসেছিলেন চার্চে। আর সেখানেই হানা দেয় ওই বন্দুকবাজ।

আহত হয়েছেন অনেকে। তাঁদের ডোরি টাউনের একটি হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। জানা গিয়েছে ওই বন্দুকবাজ প্রথমে এলাকার দোকানে ঢুকে লুঠপাট শুরু করে। চাল ও তেল নিয়ে পালায় ওই ব্যক্তি। এরপর হামলা চালানো হয়। চার্চে আগুন জ্বালিয়ে দেওয়া হয়।

মৃতদের মধ্যে রয়েছেন ক্রিশ্চান ও মুসলিম উভয়েই। আগেও ওই এলাকায় ধর্মীয় নেতাদের টার্গেট করা হয়েছে।

গত বছরের ডিসেম্বরে এই বুরকিনা ফাসোতে সামরিক ঘাঁটিতে হামলায় অন্তত ৩৫ বেসামরিক লোক ও ৭ সেনা নিহত হন। এই সময় সেনাবাহিনীর পাল্টা আঘাতে হামলাকারীদের ৮০ জন প্রাণ হারান। নিহত ব্যক্তিদের মধ্যে ৩১ জনই মহিলা ছিলেন।

২০১৫ সালের শুরু থেকে মালি ও নাইজারের সীমান্তবর্তী পশ্চিম আফ্রিকার দেশ বুরকিনা ফাসোতে জঙ্গি হামলার ঘটনা বৃদ্ধি পেয়েছে। ওই সময় থেকে দেশটির সাহেল অঞ্চলে জঙ্গি সহিংসতা ছড়িয়ে পড়তে শুরু করে। এর ফলে শত শত লোক জঙ্গিদের হাতে নিহত হয়েছে।

পপ্রশ্ন অনেক: চতুর্থ পর্ব

বর্ণ বৈষম্য নিয়ে যে প্রশ্ন, তার সমাধান কী শুধুই মাঝে মাঝে কিছু প্রতিবাদ