ম্যাঞ্চেস্টার: বন্ধু বিরাট কোহলির কাছ থেকে আরসিবি-র জার্সি পেলেন ম্যাঞ্চেস্টার সিটি-র কোচ পেপে গুয়ার্দিওয়ালা৷ বিশ্ব ফুটবলের কিংবদন্তি কোচ গুয়ার্দিওয়ালা হলেন কোহলি ও আরসিবি-র দারুণ ফ্যান৷ বিরাটের নেতৃত্বে বৃহস্পতিবার রাজস্থান রয়্যালসকে হারিয়ে লিগ টেবলে এক নম্বরে উঠে আসে রয়্যাল চ্যালেঞ্জার্স ব্যাঙ্গালোর৷

কোহলির মেন স্পনসর পুমা গুয়ার্দিওলার প্রশিক্ষণাধীন ম্যাঞ্চেস্টার সিটি দলেরও জার্সি প্রস্তুতকারক। এই ক্রীড়া সরঞ্জাম নির্মাণকারী সংস্থার দৌলতে ফুটবল ও ক্রিকেট দুই ভিন্ন জগতের ব্যক্তিত্ত্বের আলাপ এবং সেখান থেক বন্ধুত্ব৷ এই বন্ধুত্বের ফলে গুয়ার্দিওয়ালার ক্রিকেটে আকর্ষণ৷ ফুটবল ইতিহাসের অন্যতম সফল কোচ গুয়ার্দিওয়ালা। স্পেন, জার্মানি ও ইংল্যান্ডে একাধিক লিগ জেতার পাশাপাশি দু’টি চ্যাম্পিয়ন্স লিগ জেতার কৃতিত্বও রয়েছে তাঁর ঝুলিতে।

চলতি মরশুমে ম্যাঞ্চেস্টার সিটির কোচ হিসেবে এক মরশুমে তিনটি ট্রফি জেতার দোঁরগোড়ায় দাঁড়িয়ে গুয়ার্দিওয়ালা। এবার ফুটবল ছেড়ে ক্রিকেটে মজেছেন তিনি। ২০২১ আইপিএলে কোহলিদের সুহানা সফর অব্যাহত৷ প্রথম চার ম্যাচ জিতে পয়েন্ট টেবলে এক নম্বর রয়েছে রয়্যাল চ্যালেঞ্জার্স ব্যাঙ্গালোর৷ বৃহস্পতিবার রাজস্থান রয়্যালসকে ১০ উইকেট হারিয়ে রেকর্ড গড়েছে আরসিবি৷ আইপিএলের ইতিহাসে তৃতীয় কনিষ্ঠ হিসেবে সেঞ্চুরি করে এলিট ক্লাবে নাম লিখিয়েছেন দেবদূত পারিক্কল৷

বৃহস্পতিবার আরসিবি রয়্যালসকে হারানোর পর বন্ধু বিরাটের দেওয়া রয়্যাল চ্যালেঞ্জার্স ব্যাঙ্গালোরের জার্সি হাতে নিয়ে সোশ্যাল মিডিয়ায় ভিডিও আপলোড করেন ম্যাঞ্চেস্টার সিটি ম্যানেজার। টুইটারে ভিডিও আপলোড লেখেন, “It’s time to finally learn cricket’s rules. Thanks to my friend @virat.kohli for the shirt. Now is your turn to use your Man City shirt @pumaindia @pumafootball #PUMAxRCB.” অর্থাৎ এবার মনে হচ্ছে ক্রিকেটের নিয়মকানুন জানার জন্য পড়াশুনা শুরু করতে হবে, কিছু জানতেই হবে। এই জার্সি উপহারের জন্য ধন্যবাদ বন্ধু কোহলিকে। এবার তোমার পালা ম্যাঞ্চেস্টার সিটির জার্সি ব্যবহার করা।’

গত বছর অক্টোবরে ইনস্টাগ্রামে লাইভ সেশনে পুমাকে নিয়ে দু’জনকে খোশমেজাজে একে অপরের সাক্ষাৎকার নিতে দেখা গিয়েছে৷ বিরাট কোহলির স্পনসর পুমা আবার গুয়ার্দিওলার নেতৃত্বাধীন সিটি দলেরও জার্সি প্রস্তুতকারক। দু’জনেই পুমার ব্র্যান্ড অ্যাম্বাসডর৷ এই স্প্যানিশ তারকা ম্যাঞ্চেস্টার সিটি-র আগে বায়ার্ন মিউনিখ ও বার্সেলোনাকে কোচিং করিয়েছেন৷

লাল-নীল-গেরুয়া...! 'রঙ' ছাড়া সংবাদ খুঁজে পাওয়া কঠিন। কোন খবরটা 'খাচ্ছে'? সেটাই কি শেষ কথা? নাকি আসল সত্যিটার নাম 'সংবাদ'! 'ব্রেকিং' আর প্রাইম টাইমের পিছনে দৌড়তে গিয়ে দেওয়ালে পিঠ ঠেকেছে সত্যিকারের সাংবাদিকতার। অর্থ আর চোখ রাঙানিতে হাত বাঁধা সাংবাদিকদের। কিন্তু, গণতন্ত্রের চতুর্থ স্তম্ভে 'রঙ' লাগানোয় বিশ্বাসী নই আমরা। আর মৃত্যুশয্যা থেকে ফিরিয়ে আনতে পারেন আপনারাই। সোশ্যালের ওয়াল জুড়ে বিনামূল্যে পাওয়া খবরে 'ফেক' তকমা জুড়ে যাচ্ছে না তো? আসলে পৃথিবীতে কোনও কিছুই 'ফ্রি' নয়। তাই, আপনার দেওয়া একটি টাকাও অক্সিজেন জোগাতে পারে। স্বতন্ত্র সাংবাদিকতার স্বার্থে আপনার স্বল্প অনুদানও মূল্যবান। পাশে থাকুন।.