হাওড়া: হাওড়ায় আজব ঘটনা। বিয়ের সাত পাক শেষ হতেই সোজা থানায় বর বউ। নবদম্পতিকে থানায় আসতে দেখে হতবাক হয়ে যায় পুলিশকর্মীরাও। সকলেই ভাবতে থাকেন, কী এমন হল যাতে মণ্ডপ থেকে উঠে সোজা থানায় যেতে হয় বর কনেকে।

থানার ডিউটি অফিসারও বর বউকে দেখে অবাক হয়ে যান। দম্পতিকে থানায় দেখে পুলিশ সদস্যরাও ভিড় জমাতে শুরু করেন। প্রত্যেকেই ভাবছিলেন বিয়ে শেষ না হতেই কী এমন কাণ্ড ঘটল যাতে থানায় হাজির হতে হয় বর বউকে।

থানায় পৌঁছানোর পরে বর-কনে জানায় তাঁরা দুজনেই এখানে পুলিশকর্তার আশীর্বাদ নিতে এসেছেন। নব দম্পতি জানিয়েছেন, এই দুর্যোগের মুহুর্তে পুলিশ যেভাবে মানুষকে সহায়তা করছে, তাতে তাঁরা অভিনন্দনের দাবিদার। পুরো সমাজ এই মুহূর্তে পুলিশ বিভাগকে নিয়ে গর্বিত। আর সেই কারণেই তাঁরা বিয়ে শেষ হওয়ার সঙ্গে সঙ্গে করোনা ওয়ারিয়রদের আশীর্বাদ নিতে এসেছেন।

আরও পড়ুন- পৃথিবীর খুব কাছে আরও একটি গ্রহানু, বিষ্ময়কর আবিষ্কার দুই পড়ুয়ার

বর-কনের কথা শুনে স্বস্তির নিঃশ্বাস ফেলেন পুলিশ কর্তা। বাগনান থানার হিজলাক গ্রামে এই ঘটনা ঘটেছে। রবিবার রাতে বিয়ে হয় অনিশ ও সংগীতার। এই বিবাহে সামাজিক দূরত্ব কঠোর ভাবে মেনে চলা হয়। খুব কম লোকই এই বিয়েতে অংশ নিয়েছিল। প্রত্যেকেরই মুখে সারাক্ষণ ছিল মাস্ক।

এই নব দম্পতিকে পুলিশের তরফে ৫০ টি মাস্ক ও স্যানিটাইজার বিয়ের উপহার হিসেবে দেওয়া হয়। অফিসার নিজেও দম্পতিকে শুভেচ্ছা জানিয়ে অভিনন্দন জানান।

পপ্রশ্ন অনেক: একাদশ পর্ব

লকডাউনে গৃহবন্দি শিশুরা। অভিভাবকদের জন্য টিপস দিচ্ছেন মনোরোগ বিশেষজ্ঞ।