মস্কো: বিশ্বকাপ জিতে লুজনিকিতে উৎসবে মাতল ফ্রান্স৷ স্টেডিয়াম থেকে ড্রেসিংরুম সর্বত্র চলল এমবাপে-গ্রিজুদের বিজয় উৎসব৷ বাদ পড়ল না সাংবাদিক সন্মেলনও৷ কোচ দেশঁ’র সাংবাদিক সন্মেলনে বিশ্বকাপ জয়ের উৎসব শুরু করে দেয় ফ্রান্স দলের ফুটবলাররা৷ সেই সঙ্গে বিশ্বকাপ জিতে আরও একটি কাণ্ড ঘটালেন ফ্রান্সের স্ট্রাইকার গ্রিজমান৷

লুজনিকির মিক্সড জোনে উরুগুয়ের ফ্ল্যাগ কাঁধে বিশ্বকাপ সেলিব্রেশেনে মেতে ওঠেন ফ্রান্সের তারকা ফুটবলার৷ লাতিন আমেরিকার উরুগুয়ে দেশটি নিয়ে গ্রিজম্যানের ভালবাসা অজানা নয়৷ তবে বিশ্বকাপ জেতার পর বিশেষ মুহূর্ত সেলিব্রেশনের সময় হঠাৎ কেন অন্য দেশের পতাকা বেছে নিলেন সেই নিয়ে বিতর্ক তৈরি হয়েছে৷

গ্রিজম্যান অবশ্য বিষয়টিকে গুরুত্ব দিতে নারাজ৷ বিশ্বকাপ জিতে ফরাসি তারকা জানিয়েছেন, ক্লাব ফুটবলে উরুগুয়ান ফুটবলাররা তাঁর সঙ্গী৷ তাই উরুগুয়ে দেশটি নিয়ে বিশেষ ভালবাসা রয়েছে৷ মিক্সজোনে উরুগুয়ান এক সাংবাদিক তাঁর হাতে সেদেশের পতাকা তুলে দিলে তাই সেই পতাকা কাঁধে তুলে নিতে দ্বিধাবোধ করেননি তিনি৷

উরুগুয়ের পতাকা কাঁধে গ্রিজমান

সেই সঙ্গে গ্রিজু আরও জানিয়েছেন, ‘উরুগুয়ে দেশটাকে আমি সম্মান করি৷ ফুটবল কেরিয়ারে উরুগুয়ান মানুষের সঙ্গে অনেকবার সাক্ষাৎ হয়েছে৷ সেদেশের সংস্কৃতি-মানুষ সবই আমার পছন্দের৷’ উল্লেখ্য অ্যাটলেটিকো মাদ্রিদ ক্লাবে উরুগুয়ান ফুটবলার দিয়েগো গোডিন, জোসে গিমেনেজরার সঙ্গে খেলেন গ্রিজমান৷ ক্লাবের ফুটবলের এই সঙ্গীদের বিরুদ্ধে রাশিয়ার বিশ্বকাপের কোয়ার্টারে ম্যাচ ছিল ফ্রান্সের৷ নকআউট পর্বের কোয়ার্টার ফাইনালের সেই লড়াইয়ে উরুগুয়েকে ২-০ হারিয়েছিল ফরাসিরা৷ ৬১ মিনিটে গোল করেছিলেন গ্রিজমান৷ এবার ফাইনালের মঞ্চে উরুগুয়েকে বিশেষ সন্মান জানালেন ফরাসি তারকা৷

লাল-নীল-গেরুয়া...! 'রঙ' ছাড়া সংবাদ খুঁজে পাওয়া কঠিন। কোন খবরটা 'খাচ্ছে'? সেটাই কি শেষ কথা? নাকি আসল সত্যিটার নাম 'সংবাদ'! 'ব্রেকিং' আর প্রাইম টাইমের পিছনে দৌড়তে গিয়ে দেওয়ালে পিঠ ঠেকেছে সত্যিকারের সাংবাদিকতার। অর্থ আর চোখ রাঙানিতে হাত বাঁধা সাংবাদিকদের। কিন্তু, গণতন্ত্রের চতুর্থ স্তম্ভে 'রঙ' লাগানোয় বিশ্বাসী নই আমরা। আর মৃত্যুশয্যা থেকে ফিরিয়ে আনতে পারেন আপনারাই। সোশ্যালের ওয়াল জুড়ে বিনামূল্যে পাওয়া খবরে 'ফেক' তকমা জুড়ে যাচ্ছে না তো? আসলে পৃথিবীতে কোনও কিছুই 'ফ্রি' নয়। তাই, আপনার দেওয়া একটি টাকাও অক্সিজেন জোগাতে পারে। স্বতন্ত্র সাংবাদিকতার স্বার্থে আপনার স্বল্প অনুদানও মূল্যবান। পাশে থাকুন।.

করোনা পরিস্থিতির জন্য থিয়েটার জগতের অবস্থা কঠিন। আগামীর জন্য পরিকল্পনাটাই বা কী? জানাবেন মাসুম রেজা ও তূর্ণা দাশ।