স্টাফ রিপোর্টার, বাঁকুড়া: ‘এনপিআর নয়, জেলা সহ রাজ্য জুড়ে ভূমিহীন-বাস্তুহীনদের তালিকা তৈরি করে বাস্তু পাট্টা সহ বাড়ি তৈরি করে দেওয়া’র দাবিতে আন্দোলনে নামল সারা ভারত কৃষি ও গ্রামীণ মজদুর সমিতি। মঙ্গলবার সংগঠনের বাঁকুড়া জেলা কমিটির পক্ষ থেকে মিছিল করে জেলাশাসকের দফতরে গণডেপুটেশন জমা দেওয়া হয়।

সংগঠন সূত্রে দাবি করা হয়েছে, বাঁকুড়া-২ ব্লকের কোষ্ঠা গ্রাম পঞ্চায়েতের খেমা গ্রামে একশোটি আদিবাসী ও তপশীল জাতিভূক্ত পরিবার প্রায় সত্তর আশি বছর ধরে বনদফতরের জমিতে বসবাস করছেন। কিন্তু এখনও তাঁরা পাট্টা পাননি। এই মুহুর্তে কেন্দ্রীয় সরকার ১ এপ্রিল থেকে এনপিআর-এর কথা ঘোষণা করেছে।

যেখানে জন্মস্থান ও জন্ম তারিখ উল্লেখ বাধ্যতামূলক। কিন্তু এই সব পরিবার গুলির কোনও বাস্তু জমির কাগজপত্র নেই। এই অবস্থায় এনপিআরের হাত থেকে রক্ষা করতে অবিলম্বে ঐ পরিবার গুলির হাতে বাস্তুর পাট্টা দেওয়ার দাবিতে তাঁরা আন্দোলনে নেমেছেন বলে জানান।

সারা ভারত কৃষি ও গ্রামীণ মজদুর সমিতির বাঁকুড়া জেলা সভাপতি বাবলু বন্দোপাধ্যায় বলেন, এনপিআর নয়, ভূমিহীন-বাস্তুহীনদের পূর্ণাঙ্গ তালিকা তৈরী করে অবিলম্বে তাঁদের হাতে বাস্তু পাট্টা তুলে দিতে হবে। একই সঙ্গে, কোষ্টা গ্রাম পঞ্চায়েত এলাকায় ২০১৯ সাল থেকে একশো দিনের প্রকল্পে একদিনও কাজ হয়নি অভিযোগ তুলে বলেন, অবিলম্বে এই কাজ শুরু করতে হবে। এছাড়াও প্রত্যেকের বাড়ি পাওয়ার বিষয়টি সংবিধানের মৌলিক অধিকারের অন্তর্ভূক্ত করার দাবিও জানিয়েছেন তিনি।