স্টাফ রিপোর্টার, দিঘা: দুই তিন দিনের ছুটি পাওয়া মানেই দিঘায় বেড়াতে চলে যাওয়া৷ কেউ প্রিয়জনের সঙ্গে সময় কাটাতে যায়৷ আবার কেউ কেউ দিঘার সামুদ্রিক মাছ থেকে শুরু করে পরিবেশের বিভিন্ন জিনিস নিয়ে গবেষণা করতে যায়৷ এত দিন গবেষণায় আসা পড়ুয়াদের থাকার অনুকূল পরিবেশ ছিল না৷

এবার স্কুল কলেজের পড়ুয়াদের জন্য রাজ্য সমাজ কল্যাণ পর্ষদ পরিচালিত নিউ দিঘার ‘ছুটি’ হলিডে হোমের দ্বার খুলে দেওয়া হল৷ সৈকতে শিক্ষামূলক ভ্রমণে আসা ছাত্রছাত্রীরা ন্যূনতম খরচে এখানে থাকার সুযোগ পেয়ে যাবেন। ৪৮ লক্ষ টাকা খরচে পুনর্নির্মিত ‘ছুটি’ আবাসনের উদ্বোধনে এসে মঙ্গলবার পড়ুয়াদের জন্য এই বিশেষ সুবিধার কথা ঘোষণা করেন নারী ও শিশুকল্যাণ মন্ত্রী শশী পাঁজা।

ছুটি আবাসনের দ্বারোদঘাটন ছাড়াও মন্ত্রী এদিনের এই অনুষ্ঠান থেকে রাজ্যব্যাপী অঙ্গনওয়াড়ি কেন্দ্রে ওষুধের কিট, কলকাতার স্কুল বহির্ভূত কিশোরীদের বিশেষ পুষ্টিকর খাদ্য, রাজ্যব্যাপী অঙ্গনওয়াড়ি কেন্দ্রের কর্মী এবং সহায়িকাদের জন্য বিশেষ পোশাক প্রদান কর্মসূচির সূচনা করেন। বেশকিছু উপভোক্তার হাতে সুবিধাও তুলে দেন মন্ত্রী।

নারী ও শিশুকল্যাণ মন্ত্রী শশী পাঁজা বলেন, ‘শিশুদের সঠিক স্বাস্থ্যের লক্ষ্যে দেওয়া হল ওষুধের কিট। যেসব কিশোরীরা স্কুলে যায় না এবার থেকে তাদেরও সপ্তাহে সপ্তাহে পুষ্টিকর খাদ্য দেওয়া হবে। আর অঙ্গনওয়াড়ি কেন্দ্রের কর্মী-সহায়িকাদের জন্য দুটো করে শাড়ি দেওয়া হল। সমাজকে অর্থাৎ মহিলা-কিশোরীদের ভালো রাখার লক্ষ্যেই এই পদক্ষেপ।’

নারী ও শিশুকল্যাণ মন্ত্রী শশী পাঁজা ছাড়াও উপস্থিত ছিলেন দফতরের সচিব সঙ্ঘমিত্রা ঘোষ, রাজ্য সমাজ কল্যাণ পর্ষদের সভানেত্রী সুরঞ্জনা চক্রবর্তী, কাঁথির মহকুমাশাসক শুভময় ভট্টাচার্য, জেলাসভাধিপতি দেবব্রত দাস এবং স্থানীয় বিধায়ক অখিল গিরি সহ জনপ্রতিনিধিরা।