ফাইল ছবি৷

নয়াদিল্লি : আগামী ২১ জুন আন্তর্জাতিক যোগা দিবস। তার আগেই কেন্দ্রীয় সরকারের তরফে জানান হল যোগার প্রচার করলেই পুরস্কার পাবে সংবাদ মাধ্যম। প্রচার করে সাধারণ মানুষকে যোগাসনে উদ্বুদ্ধ করতে পারলেই পুরস্কার পাবে মিডিয়া হাউসগুলি। শনিবার কেন্দ্রীয় সরকারের তরফে এমনই ঘোষণা করা হয়েছে।

এই প্রাপ্তিযোগের খবর দিয়েছেন স্বয়ং কেন্দ্রীয় পরিবেশমন্ত্রী প্রকাশ জাভড়েকর। তিনি জানিয়েছেন, আগামী ২১ জুন বিশ্ব যোগাসন দিবস। তার আগে যোগাসন নিয়ে লাগাতার প্রচার করলে পুরস্কৃত করা হবে। মোট ৩৩টি পুরস্কার থাকবে। আর এই পুরস্কার পাবে দেশের সংবাদমাধ্যম। সংবাদপত্র, সংবাদ চ্যানেল ও রেডিও-র মত সংবাদ মাধ্যমকে এই পুরস্কার দেওয়া হবে। ১১টি সংবাদপত্র, ১১ সংবাদ চ্যানেল ও ১১টি রেডিও সংস্থাকে এই পুরস্কার দেওয়া হবে বলে এদিন জানিয়েছেন কেন্দ্রীয় পরিবেশমন্ত্রী।

তিনি জানিয়েছেন, সরকার স্বীকৃত ২৩ টি ভাষার সংবাদমাধ্যমগুলি এই প্রতিযোগিতায় অংশগ্রহণ করতে পারবে। ১০ জুন থেকে ২৫ জুন পর্যন্ত যারা প্রচার করবে, তাদেরই আন্তর্জাতিক যোগ পুরস্কারের জন্য বিবেচনা করা হবে। ৩৩টি সংবাদমাধ্যমকে বাছাই করার জন্য ৬ সদস্যের একটি কমিটিও তৈরি করা হচ্ছে। মোদী সরকার ক্ষমতায় আসার পর যোগাসনের উপর বিশেষ জোর দেওয়া হয়। ২০১৫ সালে ২১ জুন যোগ দিবস পালন করা হয়। নয়াদিল্লির রাজপথে যোগ দিবসের অনুষ্ঠানে অংশগ্রহণ করেন স্বয়ং প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী।

এরপর ২১ জুনকে বিশ্ব যোগ দিবসের মর্যাদা দেওয়া হয় রাষ্ট্র সংঘের তরফে। প্রতিবছর দেশের বিভিন্ন শহরে আন্তর্জাতিক যোগ দিবস পালন করা হয়। ২০১৬ সালে চণ্ডীগড়ে, ২০১৭ সালে লখনউতে ও ২০১৮ সালে দেরাদুনে বিশ্ব যোগ দিবসের অনুষ্ঠান হয়েছিল। এবার হবে ঝাড়খণ্ডের রাঁচিতে। প্রথমবার ১৯১টি দেশ বিশ্ব যোগ দিবসের অনুষ্ঠানে অংশগ্রহণ করেছিল। তার পর থেকে প্রতিবার ২০০-র বেশি দেশ এই অনুষ্ঠানে অংশগ্রহণ করে। এবার কয়েক মিলিয়ন মানুষ ওই যোগ দিবসে সামিল হবেন বলে বিশ্বাস কেন্দ্রীয় পরিবেশমন্ত্রীর।

প্রকাশ জাভড়েকরের কথায়, অনেক সংবাদসংস্থাই যোগাসনে বাড়তি গুরুত্ব দেয়। প্রচার করে থাকে। সেই প্রচারকে আরও ভালোভাবে করতেই এই উদ্যোগ নেওয়া হয়েছে।