নয়াদিল্লি: প্রধানমন্ত্রী হওয়ার পর থেকে ঘন ঘন বিদেশ সফরের জেরে বিরোধীদের সমালোচনার মুখে পড়তে হয়েছিল নরেন্দ্র মোদীকে। শেষ পাঁচ বছরে তাঁর বিদেশ সফরের জন্যই খরচ হয়েছে ৪৪৬ কোটি টাকা। বিদেশ মন্ত্রকের তরফে এমনটা জানানো হয়েছে।

এই তথ্য সামনে আসার পরে বিরোধীদের হাতে এক নতুন অস্ত্র উঠে এল বলে মনে করছেন রাজনৈতিক মহল। এমনিতেই একাধিক নীতি নিয়ে বিরোধীদের চাপে কোণঠাসা কেন্দ্রীয় সরকার। তারপরে এই বিষয় সামনে আসাতে কিছুটা ব্যাকফুটে গেরুয়া শিবির।

বিদেশ মন্ত্রকের রাষ্ট্রমন্ত্রী ভি মুরলীধরণ জানিয়েছেন চাটার্ড ফ্লাইট সহ বিমান যাত্রাতে প্রধানমন্ত্রীর বিদেশ সফরে গত পাঁচ বছরে ৪৪৬.৫২ কোটি টাকা বিল মেটাতে হয়েছে সরকারকে। তাঁর পরিসংখ্যান অনুসারে ২০১৫-১৬ সালে মোদীর বিদেশ সফরের জন্য খরচ হয়েছিল ১২১.৮৫ কোটি টাকা। ২০১৬-১৭ তে তা কমে দাঁড়িয়েছিল ৭৮.৫২ কোটি টাকা।

আরও পড়ুন – মমতা ‘সততার প্রতীক নন, সারদার প্রতীক’, কটাক্ষ বিজেপি নেতার

এছাড়া ২০১৭-১৮ সালে মোদীর জন্য খরচ হয়েছিল ৯৯.৯০ কোটি টাকা। ২০১৮-১৯ সালে এই পরিমাণ দাঁড়িয়েছিল ১০০.২ কটি টাকাতে। আর ২০১৯-২০ সালে প্রধানমন্ত্রীর জন্য ৪৬.২৩ কোটি টাকা খরচ হয়েছিল বলে জানিয়েছেন বিদেশ মন্ত্রকের স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী।

এছাড়া আগামী ১৬ মার্চ ঢাকা পৌঁছনোর কথা রয়েছে প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদীর। সেখানে তাকে ঘেরাও করার হুমকি দেওয়া হলেও তিনি সেখানে যাবেন বলেও জানিয়েছেন। আর প্রধানমন্ত্রীর সফরের আগেই বাংলাদেশে যাবেন বিদেশসচিব হর্ষবর্ধন শ্রিংলা। দুদিনের সফরে বাংলাদেশ যাবেন তিনি। মূলত মোদীর সফরসূচি এবং প্রস্তুতি হিসাবেই শ্রিংলার এই সফর। জানা গিয়েছে, এই সফরে বাংলাদেশ প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা, বিদেশমন্ত্রী একে আবদুল মোমেন এবং বিদেশসচিব মাসুদ বিন মোমেনের সঙ্গে বৈঠক হওয়ার কথা রয়েছে।

Proshno Onek II First Episode II Kolorob TV