দিসপুর: ডেমোক্র্যাটিক ফ্রন্ট অব বড়োল্যান্ডের সঙ্গে চুক্তি সই করল সরকার। এই ত্রিপাক্ষিক চুক্তি সই করার সময় উপস্থিত ছিলেন খোদ স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী অমিত শাহ। সোমবারের এই চুক্তিতে স্বাক্ষর করেন, অসমের মুখ্যমন্ত্রী সর্বানন্দ সোনওয়াল, স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী অমিত শাহ ও বড়ো বিচ্ছিন্নতাবাদী সংগঠনের চারটি শাখা সংগঠন।

এই চুক্তি অনুযায়ী, যারা স্বাধীন বড়োল্যান্ডের দাবিতে অস্ত্র হাতে তুলে নিয়েছিল কেন্দ্র তাদের প্রতি নরম মনোভাব নেবে। আগামী ৩০ জানুয়ারির মধ্যে ১৫০০ জঙ্গি আত্মসমর্পণ করবেন। তার বদলে নিহত বড়ো জঙ্গিদের স্ত্রী’দেরকে ৫ লক্ষ টাকা সরকারি অনুদান দেবে সরকার। এছাড়া যে জঙ্গিরা আত্মসমর্থন করবেন তাঁদেরকে আধা সামরিক বাহিনীতে জায়গা দেওয়া হবে বলেও জানানো হয়েছে। পাশাপাশি বড়ো অধ্যূষিত কেন্দ্রে আর্থসামাজিক উন্নতির জন্য ১৫০০ কোটি টাকা অনুদান দেবে কেন্দ্র।

চুক্তি স্বাক্ষরের পর সাংবাদিক সম্মেলনে কেন্দ্রীয় স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী অমিত শাহ জানান, অসমে শান্তি স্থাপনে সহায়তা করবে এই চুক্তি। পাশাপাশি এই চুক্তিকে তিনি এই চুক্তিকে ঐতিহাসিক বলে উল্লেখ করেন। অসমের শিক্ষামন্ত্রী হিমন্ত বিশ্ব শর্মা দাবি করেন, এই চুক্তির ফলে বড়ো জনজাতির সার্বিক উন্নয়ন হবে। পাশাপাশি নিশ্চিত হবে ভূমি ও ভাষার অধিকার। অন্যদিকে ত্রিপাক্ষিক চুক্তি স্বাক্ষরের পরেই আত্মসমর্পণ করেন এনডিএফবির বেশ কয়েকজন শীর্ষ স্থানীয় জঙ্গি।

এই চুক্তি অনুযায়ী, বিটিএবি এলাকাকে বোরোল্যান্ড টেরিটরিয়াল রিজিয়ন নামে চিহ্নিত করা হবে। বোরো ভাষাকে দেবনাগরীর হরফ সহকারে অসমেয়র অফিসিয়াল ল্যাঙ্গুয়েজেরও মর্যাদা দেওয়া হবে। পাশাপাশি ওই চুক্তিতে বলা হচ্ছে, ওই কোনও বহিরাগত ওখানে ভোটাধিকার পাবে না। বাইরে থেকে কাজ করতে এলে লাগবে ওয়ার্ক পারমিট।