কলকাতাঃ  রাজ্য সরকারের অবসরপ্রাপ্ত কর্মীদের জন্যে এবার আধার জমা দিতে হবে। লাইফ সার্টিফিকেট জমা নেওয়ার সময় আঙুলের ছাপের মাধ্যমে আধার নম্বর যাচাইয়ের ব্যবস্থা চালু হচ্ছে। চলতি মাসের ২৫ অক্টোবর এই সংক্রান্ত বিজ্ঞপ্তি প্রকাশ করেছে অর্থ দফতর। বিজ্ঞপ্তি মোতাবেক ‘জীবন প্রমাণ’ পোর্টালের মাধ্যমে অনলাইনে ডিজিটাল লাইফ সার্টিফিকেট চালু করার বিষয়টি জানানো হয়েছে। এই ব্যবস্থা পারিবারিক পেনশন প্রাপকদের ক্ষেত্রেও প্রযোজ্য হবে।

যদিও অর্থ দফতরের তরফে দেওয়া বিজ্ঞপ্তিতে জানানো হয়েছে যে এটা বাধ্যতামূলক নয়। পেনশনপ্রাপকরা চাইলে এতদিন যেভাবে ফর্ম পূরণ করে লাইফ সার্টিফিকেট জমা দিতেন, সেটাও করতে পারবেন। অবসরপ্রাপ্ত কেন্দ্রীয় সরকারি কর্মী পেনশন ও পারিবারিক পেনশন প্রাপকদের ডিজিটাল লাইফ সার্টিফিকেট আগেই চালু হয়েছে। এমনটাই বাংলা এক সংবাদমাধ্যমের প্রকাশিত খবরে বলা হয়েছে।

কেন্দ্রীয় এবং রাজ্য সরকারি কর্মীদের অবসরের পর প্রত্যেক বছর লাইফ সার্টিফিকেট জমা দিতে হয়। আর তা দেওয়া না হলে পেনশন বন্ধ হয়ে যায়। নভেম্বর মাসে ব্যাংকে গিয়ে এই লাইফ সাপোর্ট জমা দিতে হয়। যদিও এবারই প্রথম ৮০ বছরের বেশি বয়সি পেনশন প্রাপকদের ক্ষেত্রে অক্টোবরেও লাইফ সার্টিফিকেট জমা দেওয়ার ব্যবস্থা করা হয়েছে বলে বাংলা ওই সংবাদমাধ্যমের প্রকাশিত খবরে বলা হয়েছে।

প্রকাশিত খবর অনুযায়ী সরকার মনে করছে এই ব্যবস্থা চালু হলে পুরো প্রক্রিয়ার মধ্যে স্বচ্ছতা আসবে। রাজ্য সরকারি কর্মীদের বহু কাজ ইতিমধ্যে ডিজিটাল ব্যবস্থার মধ্যে হয়ে থাকে। অর্থ দফতরের আইএফএমএস পোর্টালের মাধ্যমে এখন যাবতীয় কাজ হয়। কিন্তু লাইফ সার্টিফিকেটের ব্যাপারটা এতদিন ডিজিটাল হয়নি। পেনশন প্রাপকরা লাইফ সার্টিফিকেটের জন্য যে ফর্ম ব্যাংকে জমা দিতেন, তা সংশ্লিষ্ট ট্রেজারিতে যেত। তারপর ট্রেজারি পেনশন চালিয়ে যাওয়ার অনুমোদন দিত। অনেক সময় এতে সমস্যা হত। ফর্ম জমা পড়লেও পেনশন বন্ধ হয়ে যাওয়ার ঘটনাও ঘটে। তখন পেনশন চালু করার জন্য ট্রেজারিতে দৌড়াদৌড়ি করতে হয়। ফর্ম জমা নেওয়া সাধারণত ব্যাংকের তরফে কোনও মেল দেওয়া হয়না। ফলে সমস্যা থেকেই যায়। আর সেই কারণেই ডিজিটাল পদ্ধতিতে বিষয়টি নিয়ে যাওয়া হচ্ছে।

প্রকাশিত খবর মোতাবেক ডিজিটাল ব্যবস্থায় যে কোনও ব্যাংক বা ট্রেজারিতে গিয়ে আঙুলের ছাপের মাধ্যমে আধার যাচাই হয়ে গেলেই পেনশন প্রাপকের মোবাইলে আইডি নম্বর সহ মেসেজ এসে যাবে। ডিজিটাল সার্টিফিকেটের জন্য আবেদন যে জীবন প্রমাণ পোর্টলে জমা পড়ে গিয়েছে, এর প্রমাণ তাঁর কাছে চলে আসবে। পরের দিনই ট্রেজারি আইএফএমএস ব্যবস্থার মাধ্যমে প্রয়োজনীয় প্রক্রিয়া চালিয়ে পেনশন প্রাপককে মোবাইলে মেসেজ পাঠিয়ে জানিয়ে দেবে তাঁর ডিজিটাল সার্টিফিকেটের আবেদন গৃহীত হয়েছে না বাতিল হয়েছে। তবে ডিজিটাল ব্যবস্থার সুযোগ নিতে গেলে পেনশনপ্রাপককে প্রথমে তাঁর সংশ্লিষ্ট ট্রেজারিতে গিয়ে পেনশন ব‌ই (পিপিও) ও আধার কার্ডের কপি জমা দিতে হবে বলে প্রকাশিত খবরে বলা হয়েছে।