স্টাফ রিপোর্টার, বোলপুর: শ্রীনিকেতনে হলকর্ষণের ৯১ তম উৎসবে অংশ নিলেন রাজ্যপাল কেশরীনাথ ত্রিপাঠি। সেখানে তিনি বলেন, ‘‘কৃষি প্রধান দেশের উন্নতিতে কৃষির সঙ্গে বিজ্ঞানকে সংযুক্ত করতে হবে। সেই কাজে বড় ভূমিকা নিতে হবে বিশ্বভারতীকে।’’

কৃষিতে দেশকে উৎসাহিত করা ও কৃষকদের মানোন্নয়নের যে যজ্ঞ রবীন্দ্রনাথ ঠাকুর শুরু করেছিলেন তার নাম ছিল সীতা যজ্ঞ। হলকর্ষণ নামে সেটাই এখন শ্রীনিকেতনের ঐতিহ্য। এবছরের হলকর্ষণে অতিথি ছিলেন রাজ্যপাল কেশরীনাথ ত্রিপাঠি।

আরও পড়ুন: এটিএম কান্ডের মূল পান্ডাসহ ধৃত আট

তিনি উল্লেখ করেনস যে কৃষি প্রধান ভারতে কৃষক ও কৃষিকাজের গুরুত্ব না থাকলে দেশের উন্নতি সম্ভব নয়। সেটা প্রায় একশো বছর আগে রবীন্দ্রনাথ বুঝতে পেরেছিলেন।

তিনি বলেন, ‘‘বর্তমানেও সেই একইভাবে দেশের উন্নতিতে কৃষির সঙ্গে বিজ্ঞানকে যুক্ত করা হচ্ছে। তাই হলকর্ষণকে শুধুমাত্র একটি উৎসবের মধ্যে সীমাবদ্ধ না রেখে সমাজের উন্নতিতে কাজে লাগানোর দ্বায়িত্ব নিতে হবে বিশ্বভারতীকে।’’

আরও পড়ুন: মারুতি গাড়ি থেকে উদ্ধার হল বিপুল পরিমাণ বিস্ফোরক

অনুষ্ঠানে হল চালনায় রাজ্যপালকে সাহায্য করেন উপাচার্য সবুজকলি সেন। ষাট জন আদিবাসী মহিলার হাতে গাছের চারা তুলে দেওয়া হয় ওই অনুষ্ঠান থেকে।

আরও পড়ুন: প্রধানমন্ত্রী পদে বসার আগেই ক্ষমা চাইতে হবে ইমরানকে

লাল-নীল-গেরুয়া...! 'রঙ' ছাড়া সংবাদ খুঁজে পাওয়া কঠিন। কোন খবরটা 'খাচ্ছে'? সেটাই কি শেষ কথা? নাকি আসল সত্যিটার নাম 'সংবাদ'! 'ব্রেকিং' আর প্রাইম টাইমের পিছনে দৌড়তে গিয়ে দেওয়ালে পিঠ ঠেকেছে সত্যিকারের সাংবাদিকতার। অর্থ আর চোখ রাঙানিতে হাত বাঁধা সাংবাদিকদের। কিন্তু, গণতন্ত্রের চতুর্থ স্তম্ভে 'রঙ' লাগানোয় বিশ্বাসী নই আমরা। আর মৃত্যুশয্যা থেকে ফিরিয়ে আনতে পারেন আপনারাই। সোশ্যালের ওয়াল জুড়ে বিনামূল্যে পাওয়া খবরে 'ফেক' তকমা জুড়ে যাচ্ছে না তো? আসলে পৃথিবীতে কোনও কিছুই 'ফ্রি' নয়। তাই, আপনার দেওয়া একটি টাকাও অক্সিজেন জোগাতে পারে। স্বতন্ত্র সাংবাদিকতার স্বার্থে আপনার স্বল্প অনুদানও মূল্যবান। পাশে থাকুন।.

কোনগুলো শিশু নির্যাতন এবং কিভাবে এর বিরুদ্ধে রুখে দাঁড়ানো যায়। জানাচ্ছেন শিশু অধিকার বিশেষজ্ঞ সত্য গোপাল দে।