স্টাফ রিপোর্টার, কলকাতা: রামমন্দির নির্মাণের ভূমিপুজো রাজভবনে উদযাপন করবেন রাজ্যপাল জগদীপ ধনকর। বুধবার সন্ধ্যে ছ’টায় রাজভবনে ঘি’য়ের প্রদীপ জ্বালাবেন তিনি। টুইট করে একথা জানিয়েছেন রাজ্যপাল।

ধনকর মনে করেন, এই দিনটি প্রত্যেক ভারতবাসীর কাছে গৌরবের এবং স্বাভিমানের। পৃথক একটি টুইটে সংবিধানের মধ্যে থাকা রাম-সীতার ছবিও শেয়ার করেছেন রাজ্যপাল। বোঝাতে চেয়েছেন, ভারতীয় সংস্কৃতির একেবারে মূলে রয়েছেন শ্রীরামচন্দ্র।

একইসঙ্গে রামমন্দির ইস্যুতেও মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের উদ্দেশে এদিন খোঁচা দিয়েছেন রাজ্যপাল। ফের একবার মমতার বিরুদ্ধে ধর্মীয় তোষণের অভিযোগ তুললেন রাজ্যের সাংবিধানিক প্রধান।

টুইটে রাজ্যপাল লিখেছেন, “আজকের এই দিনটির জন্য দীর্ঘ সময় অপেক্ষা করতে হয়েছে। বিচার ব্যবস্থাকে এমন ঐতিহাসিক রায়ের জন্য ধন্যবাদ।” এরপরেই ধনকড় লিখেছেন, “তোষণের পাকে-চক্করে মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় রামমন্দির নিয়ে নীরব হয়ে রয়েছেন। রাজ্যবাসীকে নিজের অবস্থান জানান।”

এদিকে এদিন সকালেই সম্প্রীতির বার্তা দিয়ে টুইট করেছেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। টুইটে তিনি লিখেছেন, “হিন্দু, মুসলিম, শিখ, খ্রিস্টান/একে অপরের ভাই-ভাই! আমার ভারত মহান,/মহান আমার হিন্দুস্তান! আমাদের দেশ তার চিরায়ত বৈচিত্র্যের মধ্যে ঐক্যের ঐতিহ্যকে বহন করে চলেছে, এবং আমাদের শেষ নিশ্বাস পর্যন্ত ঐক্যবদ্ধভাবে এই ঐতিহ্যকে সংরক্ষিত রাখবো”।

তাৎপর্যপূর্ণ হল, টুইটে কোথাও সরাসরি রাম মন্দিরের কথা লেখেননি তৃণমূলনেত্রী। ভূমি পুজোর প্রসঙ্গও উত্থাপন করেননি তিনি।

প্রশ্ন অনেক: দশম পর্ব

রবীন্দ্রনাথ শুধু বিশ্বকবিই শুধু নন, ছিলেন সমাজ সংস্কারকও