কলকাতা: বৃহস্পতিবার যাদবপুর বিশ্ববিদ্যালয়ের ঘটনার পর হাসপাতালে ভর্তি উপাচার্য সুরঞ্জন দাস। একই হাসপাতালে ভর্তি আছেন সহ-উপাচার্য প্রদীপ কুমার ঘোষ। সংঘাত পৌঁছে গেছে চুড়ান্ত পর্যায়ে। রাজ্যপাল এবং আচায জগদীপ ধনকর তাঁদের দেখতে শনিবার পৌঁছে গেলেন আমরি হাসপাতালে।

জানা গিয়েছে, মিনিট দশেক রাজ্যপাল তথা আচার্য রাজদীপ ধনকর সুরঞ্জন দাসে সঙ্গে একান্তে কথা বলেন। প্রায় পচিশ মিনিট তিনি হাসপাতালে ছিলেন। সহ উপাচার্যের সঙ্গেও দেখা করেন তিনি।

প্রথমে সুরঞ্জন দাসের ডাক্তারের উপস্থিতিতে রাজ্যপাল তাঁর শরীরের হাল-হকিকৎ জানতে চাইলেও কিছুক্ষণের মধ্যেই তিনি ডাক্তারকে ঘরের বাইরে যেতে বলেন।

রাজ্যপাল কঠিন প্রশাসনিক দায়িত্ব এবং একইসঙ্গে সৌজন্যতা বজায় রেখে হাসপাতাল থেকে তাঁদের নিজস্ব রাইটিং-প্যাড চাওয়া হয়। তবে ঠিক কি কথা হয়েছে তা জানা না গেলেও হাসপাতাল সূত্রের খবর, সেদিন ওই ঘটনার পর উপাচার্যের তরফ থেকে ঠিক কি কি পদক্ষেপ নেওয়া হয়েছে সেই কথাই হয়েছে বলে মনে করা হচ্ছে।

তবে বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষাবিদদের মতে, পরিস্থিতি খুব শিগগিরিই স্বাভাবিক হবে। রাজ্যপাল বুঝতে পেরেছেন শিক্ষাবিদদের সীমাবদ্ধতা ঠিক কতটা। তাই সবকিচগু আবারও স্বাভাবিক হবে। উপাচার্যর শারীরিক অবস্থা দেখেই তাঁকে কবে ছেড়ে দেওয়া হবে জানানো হবে হাসপাতালের তরফে।