স্টাফ রিপোর্টার, কলকাতা: নাগরিকত্ব সংশোধনী আইনের প্রতিবাদে উত্তপ্ত রাজ্যের বিভিন্ন জায়গা। রেল অবরোধ, ইট-পাটকেল ছোড়ার এমনকি কয়েক জায়গায় বাসে আগুন লাগানোর ঘটনাও ঘটেছে। কড়া হাতে এই পরিস্থিতি সামলানোর জন্য মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের সরকারকে বার্তা দিলেন রাজ্যপাল জগদীপ ধনখড়। একইসঙ্গে আরও একবার শান্তিশৃঙ্খলা রক্ষার আবেদনও করেছেন।

সংশোধিত নাগরিকত্ব আইনের প্রতিবাদে শুক্রবার থেকেই রাজ্যের বিভিন্ন প্রান্তে দফায় দফায় বিক্ষোভ, রেল-সড়ক অবরোধ চলছে৷ এদিন দুপুর থেকে অশান্ত হয়ে উঠেছিল হাওড়ার উলুবেড়িয়া, মুর্শিদাবাদের বেলডাঙা-সহ রাজ্যের বেশ কিছু অঞ্চল। বিক্ষোভের আঁচ পড়ে খাস কলকাতাতেও। মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় এ দিন বার্তা দিয়েছেন, কেউ যেন আইন নিজের হাতে না তুলে নেন। সে ক্ষেত্রে প্রশাসন কড়া ব্যবস্থা নেবে বলেও হুঁশিয়ারি দিয়েছেন তিনি। কিন্তু শনিবারও রাজ্যে এই একই পরিস্থিতি ছিল৷

বিক্ষোভকারীদের উদ্দেশ্যে এদিন রাজ্যপাল বলেন, বলেন,”রাজ্যজুড়ে ঘটে চলা ঘটনাপ্রবাহে আমি মর্মাহত। সংবিধানের মাধ্যমে একটা আইন তৈরি হয়েছে। সবাই, বিশেষ করে আমার মতো সাংবিধানিক পদাধিকারীদের তাতে ভরসা রাখা দরকার।”

রাজ্যে নাগরিকপঞ্জি বা নাগরিকত্ব সংশোধনী আইন কার্যকর হতে দেবেন না বলে হুঙ্কার দিয়েছেন মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। তাঁর নাম না করে রাজ্যপাল এদিন বলেন,”গোটা দেশের জন্য আইন আনা হয়েছে। আমি মানতে রাজি নই, এটা কেউ বলতে পারেন না। সংবিধান মেনে যাঁরা শপথ নিয়েছেন, তাঁরা আইন চ্যালেঞ্জ করতে পারেন না। কেউ বিষয়টি নিয়ে রাজনীতি করবেন না৷”

তিনি আরও বলেন, ”পশ্চিমবঙ্গের সবাইকে বিশেষ করে সরকারকে আমার আবেদন, অতীতে কী হয়েছে ভুলে গিয়ে অবিলম্বে অপরাধীদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নিন। সেটা যদি না পারেন, পশ্চিমবঙ্গের শিক্ষা-সংস্কৃতির প্রতি অবমাননা করা হবে। যারা বিশৃঙ্খলা করছে তাদের ধরুন, অপরাধীদের চিহ্নিত করুন। সরকারকে আরও সক্রিয় হতে হবে। রাজনীতি করবেন না।”