কলকাতা: বর্ধমান বিশ্ববিদ্যালয়ে সহ-উপাচার্য নিয়োগ নিয়ে রাজ্যের সঙ্গে চলা দ্বন্দ্বে ইতি টানার চেষ্টা রাজ্যপালের। গত কয়েকদিন এবিষয়ে রাজভবনের সঙ্গে তিক্ততা বেড়েছিল রাজভবনের। এবার সেই বিষটি নিয়েই মুখ খুললেন রাজ্যপাল। তাঁর কথায়, ‘এটা শিক্ষাক্ষেত্রে বিতর্কের সময় নয়, এতে পড়ুয়াদের উপকার হবে না।’

সোমবার বর্ধমান বিশ্ববিদ্যালয়ের সহ উপচার্য ( প্রশাসনিক ও শিক্ষা) পদে অধ্যাপক গৌতম চন্দ্রকে নিয়োগ করেছেন আচার্য তথা রাজ্যপাল জগদীপ ধনখড়। এই নিয়োগের প্রেক্ষিতে আগেই কড়া প্রতিক্রিয়া জানিয়েছিলেন শিক্ষামন্ত্রী পার্থ চট্টোপাধ্যায়। তাঁর অভিযোগ, ‘রাজ্যপাল বিজেপির প্রতিনিধিকে সহ উপচার্য পদে নিয়োগ করেছেন। সরকার এই সিদ্ধান্ত মানবে না।’

পাল্টা শিক্ষামন্ত্রীর দাবি উড়িয়ে রাজ্যপাল বলেন, ‘যা করেছি, আইন মেনেই করেছি। বর্ধমান বিশ্ববিদ্যালয়ের আইনের ৯ নম্বর ধারার এক নম্বর উপধারার আইন মেনে অধ্যাপক গৌতম চন্দ্রকে সহ উপচার্য ( প্রশাসনিক ও শিক্ষা) পদে নিয়োগ করা হয়েছে।’

মঙ্গলবার সাংবাদিক সম্মেলন করে শিক্ষামন্ত্রী পার্থ চট্টোপাধ্যায় আরও গুরুতর অভিযোগ তোলেন রাজ্যপালের বিরুদ্ধে। শিক্ষামনন্ত্রীর অভিযোগ, ‘বিশ্ববিদ্যালয়গুলিতে প্রতিবন্ধকতা সৃষ্টি করার চেষ্টা করছেন রাজ্যপাল। উপাচার্যদের ফোন করে ভয় দেখানো হচ্ছে।’

শেষমেশ বুধবার সাংবাদিক সম্মেলন করে এবিষয়ে সরাসরি তাঁর প্রতিক্রিয়া জানালেন রাজ্যপাল জগদীপ ধনখড়। তিনি বলেন, ‘রাজ্য কঠিন সময়ের মধ্য দিয়ে যাচ্ছে। এখন শিক্ষাক্ষেত্রে বিতর্কের সময় নয়। এতে পড়ুয়াদের উপকারে আসবে না। বর্তমান পরিস্থিতিতে বিতর্ক চাই না। রাজ্যের সঙ্গে কাঁঝে কাঁধ মিলিয়ে আমি কাজ করতে চাই।’

পপ্রশ্ন অনেক: নবম পর্ব

Tree-bute: আমফানের তাণ্ডবের পর কলকাতা শহরে শতাধিক গাছ বাঁচাল যারা