নয়াদিল্লিঃ  নিয়ম অনুযায়ী কোনও সংস্থায় পাঁচ বছর কাজ করার পর মেলে গ্র্যাচ্যুইটি। কিন্তু পাঁচ বছর না হওয়ার আগেই যদি সংস্থা ছেড়ে অন্য কোথাও কাজে যোগ দেন তাহলে গ্র্যাচুইটির টাকা পাওয়া যায়নি। দীর্ঘদিন ধরে এভাবে চলে আসছে গ্র্যাচুইটি দেওয়ার এই নিয়ম। কিন্তু এবার এই নিয়মে কিছু রদবদল করতে চলেছে কেন্দ্রীয় সংস্থা। বেসরকারি চাকুরীজীবী কাছে প্রভিডেন্ট ফান্ড এবং গ্র্যাচুইটির টাকা যথেষ্ট গুরুত্বপূর্ণ।

অনেকেই এই টাকার উপর অনেক কিছু পরিকল্পনা করে থাকেন। কিন্ত ভালো চাকরি অফারের জন্যে পাঁচ বছরের মধ্যেই যদিও পুরনো সংস্থা ছেড়ে দিতে হয় তাহলে গ্র্যাচ্যুইটির টাকাও কর্মীর হাত ছাড়া হয়। আর্থিক ক্ষতির মুখে পড়তে হয় চাকুরিজীবিদের। এবার গ্র্যাচুইটি পাওয়ার ক্ষেত্রে সংশোধিত নিয়ম আনতে পারে কেন্দ্রীয় সরকার। ১৮ নভেম্বর শীতকালীন অধিবেশনে নিয়ম বদলানোর প্রস্তাব উঠবে বলে জানা যাচ্ছে।

এই নিয়ম কার্যকর হলে কর্মচারীদের গ্র্যাচুইটি পাওয়ার ক্ষেত্রে আর পাঁচ বছর কোনও সংস্থায় কাজ করা বাধ্যতামূলক থাকবে না। বেসরকারি সংস্থার কর্মচারীরা এই সিদ্ধান্ত বেশ উপকৃত হবেন। কারণ বেশিরভাগ ক্ষেত্রেই বেসরকারি সংস্থার কর্মীরা বেশী বেতনের আশায় এক সংস্থা থেকে অন্য সংস্থায় যোগ দিয়ে থাকেন। আর তাতে গ্র্যাচুইটির টাকা পাননা। আর সেই কারণে গ্র্যাচুইটির টাকা পাওয়ার নিয়মে বেশ কিছু রদবদল আনতে চায় সরকার।

জানা গিয়েছে, গ্র্যাচুইটি পাওয়ার ক্ষেত্রে এবার আর মাত্র এক বছরের সময়সীমা রাখতে পারে সরকার। অর্থাত্ আপনি কোনও সংস্থায় এক বছর চাকরি করেছেন মানেই গ্র্যাচুইটি পাওয়ার যোগ্য বলে বিবেচিত হবেন। এর ফলে বেসরকারি সংস্থার কর্মীরা অনেকাংশেই উপকৃত হবে বলে মনে করা হচ্ছে। জানা গিয়েছে, এই বিষয়ে খুব শীঘ্রই সিদ্ধান্ত জানাতে পারে মোদী সরকার।