নয়াদিল্লি: অবশেষে, ভোডাফোন-আইডিয়া সংযুক্তিকরণে সম্মতি দিল সরকার৷ তথ্য জানাচ্ছে, দুই তাবড় টেলিকম সংস্থার একত্রীকরণ তৈরি করবে দেশের সর্ববৃহৎ মোবাইল ফোন অপারেটর৷ যার মার্কেট শেয়ার থাকছে ৩৫ শতাংশ৷

এক সরকারি আধিকারিক জানান, ওয়ান-টাইম স্পেকট্রাম চার্জ (ওটিএসসি) হিসেবে দুই সংস্থা ৭,২৪৮.৭৮ কোটি টাকা প্রদান করার পরই টেলিকমিউনিকেশন বিভাগ দুই সংস্থার সংযুক্তিকরণে অনুমোদন দিয়েছে৷

অনুমোদনটিকে সুনিশ্চিত করে টেলিকম সচিব অরুনা সুন্দরারাজন বলেন, একত্রীকরণের পর মার্কেট স্থিতিশীল অবস্থায় থাকবে, এমনটাই আশা রাখছে সরকার৷ তিনি (সুন্দরারাজন ) মনে করেন, তিন শক্তিশালী প্রাইভেট সেক্টর প্লেয়ার এবং এক পাবলিক সেক্টর প্লেয়ারের উত্থান টেলিকম মার্কেটে বিপ্লব আনতে চলেছে৷ ভোডাফোন-আইডিয়ার সংযুক্তিকরণের পর গ্রাহক সংখ্যায় ভারতীয় এয়ারটেলের থেকে অনেকাংশে এগিয়ে গিয়েছে সংস্থা (ভোডাফোন-আইডিয়া)৷ তথ্য জানাচ্ছে, ভারতের দ্বিতীয় বৃহত্তম টেলিকম সংস্থা হিসেবে উঠে এসেছে রিলায়েন্স জিওর নাম৷

বিষয়টিতে মন্তব্য করেন আদিত্য বিড়লা গ্রুপের চেয়ারম্যান কুমার মঙ্গলম বিড়লা৷ তিনি বলেন, দারুণ একটি সফর শুরু হতে চলেছে৷ ‘আসল কাজটি এবার শুরু হবে এবং আমরা ভীষণ আশাবাদী বিষয়টি নিয়ে৷’প্রতিদ্বন্ধী সংস্থা রিলায়েন্স জিওকে বাণিজ্যিক প্রতিযোগিতায় হারানোর উদ্দ্যেশ্যেই ২০১৭ সালের মার্চে ভোডাফোন-আইডিয়া যৌথভাবে সংযুক্তিকরণের ঘোষণাটি করে৷ ইতিমধ্যেই জিও সস্তার কল সহ একাধিক সুবিধা এনে টেলিকম মার্কেটে গভীরভাবে প্রভাব বিস্তার করেছে৷

সংযুক্তিকরণের পর টেলিকম সংস্থাটির নতুন সিইও এর নামের তালিকায় উঠে এসেছে বালেস শর্মার নাম৷ সংযুক্তিকরণের বিষয়ে মতামত জানান ভোডাফোন সিইও৷ তিনি বলেন, ভারতীয় টেলিকম মার্কেটে প্রতিযোগীতা যথেষ্ট বেশি৷ ইতিমধ্যেই দুই সংস্থার (ভোডাফোন-আইডিয়া) সংযুক্তিকরণের উপর টেলিকমিউনিকেশন বিভাগের থেকে শর্তসাপেক্ষ অনুমোদন পেয়েছি৷