কলকাতা: ক্লাব থেকে উধাও গোষ্ঠ পালের পদ্মশ্রী ও আরও কয়েকটি পদক-সম্মান৷ ফিরিয়ে দিতে অপারগ মোহনবাগান!

এক মাস আগে, ক্লাব থেকে  হারিয়ে যওয়া গোষ্ঠ পালের পদ্মশ্রী সম্মান ফিরিয়ে দেওয়ার প্রতিশ্রুতি দিয়েছিল মোহনবাগান ক্লাব৷ সপ্তাহের পর সপ্তাহ ঘুরলেও কিংবদন্তি ফুটবলারের নিখোঁজ সম্মান খুঁজে দিতে না পারায় চোখে জল পরিবারের৷ শেষটায় অপমানে গোষ্ঠ পালের ৪৪তম মৃত্যদিবসে ক্লাবের দেওয়া মোহনবাগান রত্ন সম্মান ফিরিয়ে দিল গোষ্ঠ পাল পরিবার৷

ফোনের ওপারে গোষ্ঠ পাল পুত্র নীরাংশুবাবু শোনালেন, ‘বাবার পদকের খোঁজ দিতে পারছে না ক্লাব৷ একমাস আগে প্রতিশ্রুতি দিয়েছিল৷ ক্লাবের কিংবদন্তির কী এই সম্মান প্রাপ্য৷’ ক্লাবের অধীনে থাকা বাবার পদ্মশ্রী সম্মান ফিরে পাওয়ার আর কোনও আশা দেখছেন না নীরাংশুবাবু৷

আরও পড়ুন- ২৭ বছর পর গোষ্ঠ পালের দুষ্প্রাপ্য পুরস্কার ফিরে পেল পরিবার

সেকারণেই গোষ্ঠ পালের প্রয়াণ দিবসেই ক্লাবের দেওয়া বাগান রত্ন ফিরিয়ে দেওয়ার কঠিন সিদ্ধান্ত নেন তিনি৷ সেই সঙ্গে নীরাংশুবাবু আরও বলেন, ‘এক মাস তো দেখলাম, আরও একমাস নয় অপেক্ষা করি৷ ক্লাবের অধীনে থাকা হারনো সম্মানগুলো ফিরে পাওয়ার কোনও আশাই তো দেখছি না৷ প্রয়োজনে এবার রাষ্ট্রপতির কাছে অভিযোগ জানাব বলে মনস্থির করেছি৷ ভোট মিটলেই সিদ্ধান্ত নেব৷’

উল্লেখ্য ১৯৬২ সালে ভারতের প্রথম ফুটবলার হিসেবে পদ্মশ্রী সম্মানে ভূষিত হয়েছিলেন গোষ্ঠ পাল। রাষ্ট্রপতি রাজেন্দ্র প্রসাদের হাত থেকে সম্মান গ্রহণ করেছিলেন৷ দুরন্ত ডিফেন্সের জন্য ‘চিনের প্রাচীর’ খেতাব পেয়েছিলেন৷

গোষ্ঠ পালের স্মারক-পুরস্কারগুলি সংরক্ষণের জন্য মোহনবাগান ক্লাবের উদ্যেগে তৈরি হবে মিউজিয়াম৷ এই  প্রতিশ্রুতিতে গোষ্ঠ পালের শেষ ইচ্ছাকে সম্মান জানিয়ে পদ্মশ্রী সম্মাননা ১৯৯২ সালে তাঁর মাতৃসম ক্লাবের হাতে তুলে দেন আত্মীয়রা৷ এর বদলে ছোট্ট একটা প্রতিশ্রুতি পেয়েছিলেন তাঁরা৷ মোহনবাগান কর্তৃপক্ষ জানিয়েছিল-ক্লাবের উদ্যেগেই তৈরি হবে সংগ্রহশালা৷ যোগ্য সম্মানে সেখানেই সংরক্ষিত থাকবে গোষ্ঠ পালের মহামূল্যবান স্মৃতি স্মারক ও পদ্মশ্রী পদক৷

আরও পড়ুন-গোষ্ঠ পালের পদ্মশ্রী ‘ভ্যানিশ’, মোহনবাগানের বিরুদ্ধে থানায় অভিযোগ

গত ২৭ বছরেও সংগ্রহশালা তৈরির কোনও উদ্যোগ নিতে পারেনি মোহনবাগান৷ সে কারণেই ক্লাবকে দেওয়া ট্রফি, স্মারকগুলি ফিরে পেতে চিঠি দিয়েছিলেন গোষ্ঠ পালের পুত্র নীরাংশু পাল৷ অনেক টালবাহানার পর গচ্ছিত সবকিছুই ফিরিয়ে দেওয়ার ঘোষণা করেন কর্তৃপক্ষ৷

সেই মতো ৯ মার্চ মোহনবাগান ক্লাব থেকে কিংবদন্তি গোষ্ঠ পালের স্মৃতি চিহ্নগুলি ফিরে পায় পরিবার৷ সেখানে অবশ্য পদ্মশ্রী পদকটির কোনও হদিশ ছিল না৷ সেই সঙ্গে যে স্মৃতি স্মারক ফিরিয়ে দিয়েছিল তার বেশিরভাগই জরাজীর্ণ ছিল বলে অভিযোগ৷ প্রয়াত ফুটবলারের পরিবার এতে ক্ষুব্ধ৷ তাঁদের তরফে সেসময় থানায় অভিযোগ জানানোও হয়৷ এবার অপমানে কিংবদন্তির প্রয়াণদিবসে ক্লাবের দেওয়া মোহনবাগান সম্মান ফিরিয়ে দিল গোষ্ঠ পাল পরিবার৷

আরও পড়ুন-অঞ্জন মিত্রের বিরুদ্ধে গোষ্ঠ পালের পুরস্কার কুক্ষিগত করার অভিযোগ