নয়াদিল্লি: স্মার্ট লাইফে স্মার্ট ফোন বা ইন্টারনেট ছাড়া চলা যে মুশকিল তা বলাই বাহুল্য৷ ইন্টারনেট আমাদের দৈনন্দিন জীবনের সঙ্গে ওতেপ্রোতভাবে জড়িয়ে৷ ডিজিটাল ইন্ডিয়াকে মাথায় রেখেই এবার দেশের ৪০০ রেলস্টেশনে ফ্রি ওয়াইফাই পরিষেবা দেওয়ার কাজ শুরু হয়ে গিয়েছে৷ ভারতীয় রেলওয়ের টেলিকম কোম্পানি রেলটেল এবং গুগল যৌথভাবে এই সুবিধা দিচ্ছে বলে জানা গিয়েছে৷

২০১৬ সালের জানুয়ারিতে মুম্বই সেন্ট্রাল রেলওয়ে স্টেশন থেকে এই কাজ শুরু হয়েছিল৷ ‘RailWire’ (ব্র্যান্ড নাম) এই ফ্রি ওয়াফাইয়ের সুবিধা দিচ্ছে৷ প্রথম বছরেই ভারতের ১০০টি রেলওয়ে স্টেশনে বিনামূল্যে এই পরিষেবা গ্রহণ করতে পারে ইন্টারনেট ব্যবহারকারীরা৷ গত দেড় বছরে তালিকায় আরও ৩০০ স্টেশন যুক্ত করা হয়েছে৷ ফ্রি ওয়াইফাই-এর সুবিধাপ্রাপ্ত রেলস্টেশনের মধ্যে ৪০০ নম্বরে রয়েছে অসমের ডিব্রুগড় রেলস্টেশন৷

তবে স্টেশনে মধ্যে ৩০মিনিট এই ওয়াইফাই ব্যবহারের সুযোগ পাওয়া যাবে, এবং প্রতি সেশনে ৩৫০এমবি ডেটা ব্যবহার করা যাবে বলে জানা গিয়েছে৷ এই নেটওয়ার্কে এই পরিষেবা ব্যবহারকারীরা মূলত ১৯-৩৪ বছরের মধ্যে জানা গিয়েছে৷ ৩৫ শতাংশের বেশি ব্যবহারকারীরা এই প্রথম ওয়াইফাই ব্যবহার করছে বলেও জানা গিয়েছে৷ এই রেলটেল প্রজেক্টের সাফল্যের ওপর ভর করে গুগল এবার স্টেশনের বাইরেও পাবলিক ওয়াইফাইয়ের পরিষেবা বিস্তারের কথা ভাবছে৷

কিভাবে এই সুবিধা পেতে পারেন?
প্রথমে দেখতে হবে আপনি রেলওয়্যার ওয়াই-ফাই যুক্ত লেওয়ে স্টেশনে আছেন কিনা৷ যে ডিভাইস(স্মার্টফোন অথবা ল্যাপটপ)-এ এই সুবিধা পেতে চাইছেন তার ওয়াই-ফাই অন করুন৷ এর পর আপনি আপনার ডিভাইসে রেলওয়্যার ওয়াই-ফাই এসএসআই দেখতে পাবেন৷ ওয়াই-ফাই-এর সঙ্গে কানেক্ট করতে গেলে রেলওয়্যার লেখা অপশনের ওপর ক্লিক করতে হবে৷ এরপরে সাইন ইন করার নোটিফিকেশন আসবে৷ এই নোটিফিকেশনের ওপর ক্লিক করুন৷

এরপর গুগল রেলওয়্যার সার্ভিসের সিকিওরড ওয়েবপেজ খুলবে৷ এতে স্টার্ট বাটন রয়েছে৷ ফ্রি ওয়াই-ফাইয়ের সুবিধা পাওয়ার জন্য আপনাকে নথিভুক্ত করার জন্য মোবাইল নম্বর চাওয়া হবে৷ মনে রাখতে হবে সঙ্গে থাকা মোবাইলের নম্বর দিতে হবে, কারণ তাতে ওয়ান টাইম পাসওয়ার্ড অথবা ওটিপি আসবে৷ পরের পেজে আপনাকে ওটিপি দিয়ে কানেক্টের ওপর ক্লিক করতে হবে৷ এরপরেই আপনার রেলওয়্যার ওয়াই-ফাই পরিষেবা শুরু হওয়ার কথা৷ তবে একবার সঠিকভাবে কানেক্ট করতে পারলে বার বার আপনাকে এই সাইন-ইন পদ্ধতি অনুসরণ করতে হবে না৷