বেঙ্গালুরু: করোনাভাইরাসে আক্রান্ত গুগলের এক কর্মী। বেঙ্গালুরুতে অবস্থিত গুগলের অফিসের এক কর্মী করোনাভাইরাসে আক্রান্ত বলে শুক্রবার সকালে এই খবর জানা গিয়েছে। একটি সর্বভারতীয় সংবাদ মাধ্যমের কাছে এই খবরের সত্যতা স্বীকার করেছেন স্বয়ং ওই টেক সংস্থাটি। জানা গিয়েছে, আক্রান্ত ওই কর্মী বিয়ের পর হানিমুনে সম্প্রতি গ্রীস ঘুরতে গিয়েছিলেন গত কয়েকদিন আগে।

সেখানে গিয়েই তিনি করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হয়েছেন বলে সন্দেহ করা হচ্ছে। এরপর তাঁর রক্ত পরীক্ষা করা হলে, রিপোর্টে করোনাভাইরাস পজিটিভ আসে। তারপরই ওই কর্মীকে বাড়ি থেকে কাজ করার পরামর্শ দেয় ওই টেক সংস্থা। এরপরেই তীব্র আতঙ্ক তৈরি হয়েছে।

এদিকে এই কয়েকদিন ওই যুবক যাঁদের সঙ্গে দেখা করেছিলেন তাঁদের খোঁজও নেওয়া হচ্ছে। গুগল জানিয়েছে, গ্রীস থেকে ফেরার পর মাত্র কয়েক ঘণ্টার জন্য তিনি অফিসে এসেছিলেন। সেদিন তিনি যাঁদের সঙ্গে কথা বলেছিলেন তাঁদের ১৪ দিনের জন্য কোয়ারেন্টাইনে থাকার পরামর্শ দেওয়া হয়েছে। পাশাপাশি শুক্রবার সংস্থার ওই অফিসের কর্মীদের বাড়ি থেকে কাজ করার নির্দেশও দিয়েছে গুগল।

এদিকে ভারতে করোনাভাইরাসে আক্রান্তের সংখ্যা লাফিয়ে লাফিয়ে বাড়ছে। বৃহস্পতিবার পর্যন্ত দেশে করোনা আক্রান্তের সংখ্যা ছুঁয়েছে ৮১। অন্যদিকে দেশে প্রথম করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হয়ে মৃত্যুর ঘটনা ঘটেছে কর্নাটকে। মৃত ব্যক্তির বয়স ৭৬। তাঁর নাম কালবুরাগি। না গিয়েছে। ওই ব্যক্তি তেলেঙ্গানার একটি হাসপাতালে গিয়েছিলেন। তাই তেলেঙ্গানা সরকারকেও এব্যাপারে সতর্ক করা হয়েছে। গত মঙ্গলবার তাঁর মৃত্যু হয়েছে। চিকিৎসকরা সন্দেহ করেছিলেন যে তাঁর শরীরে করোনা ভাইরাস আছে। বৃহস্পতিবার সেই টেস্টের রিপোর্ট এসেছে ও জানা গিয়েছে যে ওই ব্যক্তি করোনাতেই আক্রান্ত ছিলেন।

প্রসঙ্গত, মারণ এই ভাইরাসের জন্ম প্রথমে চিন হলেও ধীরে ধীরে তা বিশ্বের প্রায় ১১৪ টি দেশে ছড়িয়ে পড়েছে। গোটা বিশ্বে মৃতের সংখ্যা প্রায় ৫ হাজারের কাছাকাছি। চিনের পর করোনাভাইরাসে সব থেকে ক্ষতিগ্রস্ত দেশ ইতালি। সেখানে এখনও পর্যন্ত মৃতের সংখ্যা ছুঁয়েছে এক হাজারের বেশি মানুষকে। এরপরই তালিকায় রয়েছে, ইরান, মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র, দক্ষিণ কোরিয়া সহ বিভিন্ন দেশে এই ভাইরাস বহু মানুষের মৃত্যুর কারণ। ভারতেও বাড়ছে সংক্রামিত রোগীর সংখ্যা।

প্রশ্ন অনেক-এর বিশেষ পর্ব 'দশভূজা'য় মুখোমুখি ঝুলন গোস্বামী।