আজকের দিনে স্মার্ট ফোন মানুষের কাছে অত্যন্ত জনপ্রিয়। এমনকী শিশুরাও আজকাল সময় কাটাতে ব্যবহার করে থাকে ফোন। আর এবারে করোনা পরবর্তী সময়ে ক্রমেই বেড়েছে অনলাইন মাধ্যম ব্যবহারের সুবিধাও।

তবে ইতিমধ্যে বেশ কিছু অ্যাপের ক্ষেত্র সুরক্ষা নিয়ে প্রশ্ন ওঠায় সেগুলি গুগল সরিয়ে দিয়েছে প্লে স্টোর থেকে। ওই অ্যাপগুলির বিরুদ্ধে তথ্য নিরাপত্তা নিয়ে প্রশ্ন ওঠার ফলেই গুগলের তরফে এই পদক্ষেপ নেওয়া হয়েছে।

জানা গিয়েছে এই তিন অ্যাপের নাম princess salon, number coloring cats &cosplay। এই তিন অ্যাপ সম্পর্কে বিস্তারিত অনুসন্ধান করে জানা গিয়েছে এগুলি শিশুদের তথ্য সঞ্চয় করে রাখে। আর সেই কারণেই প্রশ্ন উঠতে শুরু করেছিল তথ্য নিরাপত্তা নিয়ে।

জানা আগিয়েছে মূলত শিশুদের তথ্য চুরি করার কারণেই তাদের তরফে এই পদক্ষেপ নেওয়া হয়েছে। এই সঞ্চয় করে রাখা ডেটা তারা কোন থার্ড পার্টির কাছে বিক্রি করছিল বলেও জানা গিয়েছে। একাধিক বিশেষজ্ঞ জানিয়েছেন, গবেষণায় ওই অ্যাপগুলির বিরুদ্ধে একাধিক প্রমাণ হাতে এসেছিল। তারপরেই পদক্ষেপ নিয়েছিল গুগল।

তবে এখনও স্পষ্ট ভাবে জানা যায়নি ঠিক কি ধরনের তথ্য তারা চুরি করছিল। কিন্তু এই ধরনের প্রমাণ হাতে আসার পরেই গুগলের তরফে নেওয়া হয়েছে চূড়ান্ত পদক্ষেপ। এর আগে ভারত সরকারের তরফে একাধিক চিনা অ্যাপের বিরুদ্ধে পদক্ষেপ নেওয়া হয়েছিল।

আর তারপরেই আন্তর্জাতিক ক্ষেত্রে যথেষ্ট গুরুত্ব বেড়েছিল এই তথ্য নিরপয়াত্তার ক্ষেত্রে। আর সেই কারণেই এবারে গুগল সরিয়ে দিল ওই তিনটে শিশুদের প্ল্যাটফর্ম। যাতে কোন ভাবে তথ্য চুরি যেতে না পারে।

লাল-নীল-গেরুয়া...! 'রঙ' ছাড়া সংবাদ খুঁজে পাওয়া কঠিন। কোন খবরটা 'খাচ্ছে'? সেটাই কি শেষ কথা? নাকি আসল সত্যিটার নাম 'সংবাদ'! 'ব্রেকিং' আর প্রাইম টাইমের পিছনে দৌড়তে গিয়ে দেওয়ালে পিঠ ঠেকেছে সত্যিকারের সাংবাদিকতার। অর্থ আর চোখ রাঙানিতে হাত বাঁধা সাংবাদিকদের। কিন্তু, গণতন্ত্রের চতুর্থ স্তম্ভে 'রঙ' লাগানোয় বিশ্বাসী নই আমরা। আর মৃত্যুশয্যা থেকে ফিরিয়ে আনতে পারেন আপনারাই। সোশ্যালের ওয়াল জুড়ে বিনামূল্যে পাওয়া খবরে 'ফেক' তকমা জুড়ে যাচ্ছে না তো? আসলে পৃথিবীতে কোনও কিছুই 'ফ্রি' নয়। তাই, আপনার দেওয়া একটি টাকাও অক্সিজেন জোগাতে পারে। স্বতন্ত্র সাংবাদিকতার স্বার্থে আপনার স্বল্প অনুদানও মূল্যবান। পাশে থাকুন।.