নয়াদিল্লি : টাকা ট্রানজাকশানের জন্য গুগল পে ইতিমধ্যেই বেশ জনপ্রিয় হয়ে উঠেছে। তবে এবার বিনামূল্যে টাকা পাঠানোর দিন শেষ হতে চলেছে। গুগল পে-র পক্ষ থেকে জানানো হয়েছে আগামী জানুয়ারি মাস থেকে গুগল পেতে টাকা পাঠাতে গেলে বিশেষ চার্জ দিতে হবে।

গুগল পে জানিয়েছে পিয়ার টু পিয়ার পেমেন্টের সুবিধা নিতে গেলে বিশেষ চার্জ দিতে হবে। বিশেষত ইনস্ট্যান্ট মানি ট্রান্সফারের ক্ষেত্রে এই ব্যবস্থা আনা হচ্ছে। জানানো হয়েছে এর বদলে আরেকটি বিশেষ সুবিধা চালু করা হবে গ্রাহকদের জন্য। গুগল পের পক্ষ থেকে জানানো হয়েছে টাকা পাঠালে সঙ্গে সঙ্গে যাতে পেয়ে যান গ্রাহকরা, তার ব্যবস্থা করা হচ্ছে।

এরই সাথে বন্ধ করে দেওয়া হচ্ছে এদের ওয়েব অ্যাপ। তবে কাজ করবে মোবাইল অ্যাপ ও অনলাইন পেমেন্ট সিস্টেম pay.google.com। ইতিমধ্যেই এই বিষয়ে একটি নোটিফিকেশন জারি করেছে গুগল পে।

জানানো হয়েছে টাকা ট্রান্সফার হতে সময় লাগতে পারে ১-৩ দিন। ডেবিট কার্ড ট্রান্সফার অবশ্য যেরকম আগে হত, তেমনই হবে। তবে যে টাকা চার্জ হিসেবে দার্য করা হয়েছে, সেটা কত পরিমাণে, তা অবশ্য এখনও জানানো হয়নি।

এদিকে, এই বছরে দীপাবলির সংজ্ঞা বদলে দিয়েছিল গুগল পে। বাজির বদলে সকলে মেতে ওঠে স্ট্যাম্প সংগ্রহ করতে। এই মজার খেলার মেয়াদ বাড়ানো হয় ১১ নভেম্বর পর্যন্ত। আর পাঁচটা স্ট্যাম্প দখলে এলেই ব্যবহারকারীরা জিতে যাবেন ২৫১ টাকা বলে জানানো হয়।

যে পাঁচটি স্ট্যাম্প ব্যবহারকারীদের সংগ্রহ করতে হয়েছিল, তা হল jhumka, flower, diya, lantren, rangoli। গুগল পে ব্যবহারকারীরা তাদের কন্টাক্ট লিস্টের সকলকে এই স্ট্যাম্প উপহার দিতেও পারবে বলে জানানো হয়েছিল। গুগল পে দিওয়ালি স্ক্যানার নিয়ে আসে এই স্ট্যাম্প সংগ্রহ করার জন্য।

এছাড়াও ব্যবহারকারীরা যদি ৩৫ টাকার বেশী লেনদেন করে তাহলে ব্যবহারকারীরা এই স্ট্যাম্প পেতে পারে বলে জানায় গুগল পে।

লাল-নীল-গেরুয়া...! 'রঙ' ছাড়া সংবাদ খুঁজে পাওয়া কঠিন। কোন খবরটা 'খাচ্ছে'? সেটাই কি শেষ কথা? নাকি আসল সত্যিটার নাম 'সংবাদ'! 'ব্রেকিং' আর প্রাইম টাইমের পিছনে দৌড়তে গিয়ে দেওয়ালে পিঠ ঠেকেছে সত্যিকারের সাংবাদিকতার। অর্থ আর চোখ রাঙানিতে হাত বাঁধা সাংবাদিকদের। কিন্তু, গণতন্ত্রের চতুর্থ স্তম্ভে 'রঙ' লাগানোয় বিশ্বাসী নই আমরা। আর মৃত্যুশয্যা থেকে ফিরিয়ে আনতে পারেন আপনারাই। সোশ্যালের ওয়াল জুড়ে বিনামূল্যে পাওয়া খবরে 'ফেক' তকমা জুড়ে যাচ্ছে না তো? আসলে পৃথিবীতে কোনও কিছুই 'ফ্রি' নয়। তাই, আপনার দেওয়া একটি টাকাও অক্সিজেন জোগাতে পারে। স্বতন্ত্র সাংবাদিকতার স্বার্থে আপনার স্বল্প অনুদানও মূল্যবান। পাশে থাকুন।.

কোনগুলো শিশু নির্যাতন এবং কিভাবে এর বিরুদ্ধে রুখে দাঁড়ানো যায়। জানাচ্ছেন শিশু অধিকার বিশেষজ্ঞ সত্য গোপাল দে।